সরকারি নথি ছাড়া ছোটোখাটো সংবাদ সংস্থাকে প্রমোট করতে পারবেনা গুগল-ফেসবুক!

0
without government document you can't post any news
নথি ছাড়া কোন পোস্ট করা সম্ভব নই অনলাইনে

হাজার সংবাদ ডেস্ক: অনলাইন মাধ্যমে ছোটো খাটো সংবাদ পত্রিকা নামহীন ভাবে খবর ছড়ানো নিয়ে বিভিন্ন দেশে মামলা চলছে। নামিদামি সংস্থা ছাড়া অন্যান্য খবরের সংস্থা যারা সামান্য ব্লগ লেখে তাদের কেই বড় করে দেখছে গুগল এবং ফেসবুক। ফেসবুক এবং গুগলের মাধ্যমে সমস্ত ছোট ছোট ব্লক সংস্থাগুলি বড় আকার ধারণ করছে আর সেখানেই চাপা পড়ে যাচ্ছে নামকরা সমস্ত সংবাদমাধ্যম সংস্থাগুলি। এবং ছোটো সংস্থা গুলো কোন মূল্য না দিয়ে বেআইনি ভাবে ইঞ্চনে করছে গুগল আডসের মাধ্যমে। তা নিয়ে বিভিন্ন দেশে মামলা চলছে সংবাদমাধ্যম থেকে।

যাদের নিজস্ব সংবাদমাধ্যম রয়েছে এবং সরকারি নিয়ম মেনে সেই সমস্ত সংবাদমাধ্যম চলে তারা এখন দাবি জানিয়েছে ক্ষুদ্র সংবাদমাধ্যম অর্থাৎ ব্লগারদের নামে তারা জানিয়েছে। যে এভাবে যদি চলতে থাকে তাহলে ফেসবুক এবং গুগল যেভাবে রাঙ্কিং করছে তাতে ছোটখাটো সংবাদ মাধ্যমগুলো অনেক বড় জায়গা করে নেবে যারা সরকারি নিয়ম মেনে বাজারে খুব বেশি টাকা ব্যয় করে না। তাদের কোনো খবর তারা নিজেরা লেখে না অন্যের খবর থেকে দেখে তারা খবর নিচ্ছে এই নিয়ে দাবি জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়া থেকে। ফেসবুককে জানানো হয়েছে যে যদি এরকম চলতে থাকে তাহলে তাদেরকে এই মামলার নীতি অনুযায়ী মূল্য দিতে হবে।

এখনো পর্যন্ত মামলার শুনানি হয়নি তবে খুব শীঘ্রই তা জানা যাবে যে সমস্ত ছোটখাটো নিউজ চ্যানেল অথবা সংবাদ ব্লগ আকারে ফেসবুক বা গুগলে পাঠানো হয় সেই সমস্ত সংবাদ মাধ্যম গুলোকে মূল্য দিতে হবে বলে। যদি মূল্য দেওয়া না হয় তাহলে এবার থেকে নিউজ বা যেকোন রকমের পোস্ট প্রদান করা যাবে না তার জন্য মূল্য দেওয়ার দরকার রয়েছে। এই সমস্ত ছোটখাটো সংস্থাগুলোর জন্য নামিদামি সংবাদ সংস্থাগুলোর চাপা পড়ে যাচ্ছে। যার জন্য সংবাদ সংস্থার এই দাবি অস্ট্রেলিয়া থেকে জানানো হয়েছে তারা তাদের এই সমস্ত সংবাদমাধ্যমকে গুগল এবং ফেসবুক বড়ো করিয়ে দিচ্ছে।

তাই গুগল-ফেসবুকের কাছে আদেশ করেছে তারা যে খুব তাড়াতাড়ি যেন সেই নিয়ম বন্ধ করে যদি বন্ধ না করে তাহলে তাদেরকে একটা মূল্য চোকাতে হবে। যদি মূল্য চোকাতে রাজি না থাকে তাহলে তাদের কোন অসুবিধা নেই গুগল সেই সূত্রে জানিয়েছে যদি আমাদের উপর মামলা চাপ দেওয়া হয় তাহলে আমরা অস্ট্রেলিয়ার বাজার ছাড়তে রাজি। অস্ট্রেলিয়ার বাজারে আমরা এই কাজ নাও করতে পারি। বেশ কয়েকদিন আগে গুগল থেকে জানিয়েছিল ডিজিটালাইজেশনের জন্য খুব তাড়াতাড়ি সমস্ত বেকারত্বের ঘুচে যাবে। হাতে আসবে চাকরি এবং যে সমস্ত সংবাদ সংস্থা বা ব্লগ রাইটার রয়েছে তাদেরকে খুব তাড়াতাড়ি একটা পজিশন তৈরি করে দেবে গুগল কিন্তু এদিকে আবার অন্য মামলায় জড়িয়ে পড়ছে গুগল এবং ফেসবুক। ডিজিটালাইজেশনের সার্টিফিকেট অর্থাৎ অস্ট্রেলিয়া থেকে জানানো হয়েছে সংবাদমাধ্যম চালাতে গেলে তাদের নির্দিষ্ট সরকারি নথি থাকতে হবে।

গুগোল সংস্থার রায় অনুযায়ী বেশ কয়েক মাস আগে জানানো হয়েছিল গুগলের থেকে যে সমস্ত সংবাদ মাধ্যম বা ব্লগাররা নিজেদের পোস্ট ছাড়বে তাদের জন্য বিজ্ঞাপনের তাদের তথ্য বিচার করে যদি মনে লাগে তাহলে গুগোল সেখান থেকে আর্থিক সুবিধা দেবে সেই সমস্ত ব্লগপোস্ট মালিকদের। গুগোল এবং ফেসবুক এর মাধ্যমে যে টাকা গ্রাহকদের পাইয়ে দিচ্ছে তা বেআইনি যদি আইনত হয় তাহলে সেই সমস্ত সংবাদ পত্রিকা সংবাদ মাধ্যমগুলোর সরকারি নথি থাকা দরকার। সরকারি নথি না থাকলে তাহলে কোনভাবেই গুগলে কোন নিউজ ছাড়া চলবে না। কিন্তু গুগল জানিয়েছে ভারত এখন ডিজিটালাইজেশনের পথে তাই ভারতের জন্য এই নিয়ম আমরা মানবো না যদিও তার জন্য গুগল নিজে জানিয়েছে এই সমস্ত কারণে অস্ট্রেলিয়া ছাড়তে রাজি কারণ এই সমস্ত নিউজ কে প্রমোট করার জন্য গুগল ফেসবুক কোনভাবেই এই সুযোগ ছাড়বে না। তারা যেমন ভাবে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট করছে তা করবে। তবে তা নিয়ে যে বড়োসড়ো জলঘোলা হচ্ছে সেটা স্পষ্ট। সমস্ত দেশের মামলার কি শুনানি হয় সেটা জানার কিন্তু অস্ট্রেলিয়া যে যথেষ্ট পদক্ষেপ নেবে এ বিষয়ে সেটা একেবারেই স্পষ্ট।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন