কেন্দ্রের নয়া নিয়মে লাইসেন্সে ছাড়া বিক্রি করতে পারবে সেনিটাইজার

0
Under the new rules, Sanitizer will be able to sell without a license
বাজারে অনুমতি পত্র ছাড়া বিক্রি হবে সেনিটাইজার

হাজার সংবাদ ডেস্ক: কেন্দ্রীয় সরকারের সাথে এখন ওষুধ বিক্রেতাদের বিরোধ। করোনা মহামারীতে ওষুধ নিয়ে আইন বদল কেন্দ্র সরকারের, তাই বিতর্ক বেড়েছে কেমিস্ট এন্ড ড্রাগিস্ট মেডিসিন কর্তাদের সাথে। এবার থেকে সেনিটাইজার বিক্রির জন্য কোন লাইসেন্স লাগবে না কেন্দ্র সরকারের এই নয়া নিয়ম বিতর্ক উঠেছে এক তরফ থেকে। এবার থেকে হ্যান্ড সেনিটাইজার বিক্রি করতে গেলে লাগবে না কোন লাইসেন্স। লাইসেন্স ছাড়া বিক্রি করতে পারে হ্যান্ড স্যানিটাইজার। কেন্দ্র সরকারের মত অনুযায়ী দাবি যেভাবে করোনা পরিস্থিতি বাড়ছে তার জন্য হ্যান্ড স্যানিটাইজার একটা গুরুত্বপূর্ণ জিনিস তাই লাইসেন্স এর মাধ্যমে যদি তা হয় তা অনেক সময় সাপেক্ষ তাই লাইসেন্স ছাড়া এখন যে কেউ বিক্রি করতে পারে।

কিন্তু এই নয়া নিয়মের বিপক্ষে রয়েছে ওষুধ প্রস্তুতকারক তারা বলেছে হ্যান্ড স্যানিটাইজার রয়েছে হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড এবং ইথানলের মতো ড্রাগস তাই কিভাবে কোন মাত্রায় এগুলি প্রয়োগ করলে সঠিকভাবে সেনিটাইজার প্রস্তুত করা যায় তা লাইসেন্স যাদের থাকবে না তারা কোনোভাবেই এই নিয়ম মানবে না। এছাড়াও যেকোন হ্যান্ড স্যানিটাইজার সমস্যা বাড়বে স্কিনের প্রবলেম দেখা দিতে পারে তার জন্য স্যানিটাইজার লাইসেন্স মুক্ত ভাবে বিক্রি করা যাবে এই নিয়ম মানতে পারছে না। করোনা এখন ঊর্ধ্বমুখী এই সময় যদি লাইসেন্স ছাড়া স্যানিটাইজার বিক্রি করতে হয়। তাহলে বাজারে সেনিটাইজার ছড়িয়ে পড়বে বিভিন্ন কোম্পানি নিজেদের স্বার্থসিদ্ধির জন্য নকল এবং ক্ষতিকারক স্যানিটাইজার বাজারে ছড়িয়ে ফেলবে।

1947 সালে কেমিস্ট এন্ড ড্রাগিস্ট এর নিয়ম পরিবর্তন হয়েছিল এবং 1945 সালে আবারো নিয়ম পরিবর্তন হয় হাজার 1940 ও 1945 সালের পুরো নিয়মকে বদলে দিয়ে এবার মোদি সরকার আরও একটি নিয়ম জারি করেছে যে লাইসেন্স ছাড়া স্যানিটাইজার বিক্রি করা যাবে। কিন্তু লাইসেন্স ছাড়া বিক্রিতে ঝুঁকি বাড়বে অনেক কারণে এখন পরিস্থিতি যা তাতে কোনো মতেই লাইসেন্স ছাড়া কোন মেডিসিন বিক্রি করতে দেওয়া উচিত নয়। লাইসেন্স ছাড়া বিক্রিতে বাজারে সমতুল স্যানিটাইজার যোগান দেওয়া যাবে কিন্তু তাতে কতটা সেফটি এবং মানুষ সাবধানতা অবলম্বন করতে পারবে তা যথেষ্ট চিন্তার। কারণ যদি স্যানিটাইজার যে কারণে ব্যবহার করা হচ্ছে সেই স্বার্থসিদ্ধি না হয়, তাহলে সেনিটাইজার ব্যবহার করে কোন লাভ নেই যারা লাইসেন্স ছাড়াই স্যানিটাইজার ব্যবহার করবে। তারা বিভিন্ন প্রকার কেমিক্যাল ইউজ না করে ব্যবহার করবে তাই তাদের স্যানিটাইজার কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা বোঝা মুশকিল।

এখন বাজারে এমনিতেই চোরা বাজারগুলিতে যথেষ্ট পরিমাণে বিক্রি হচ্ছে এবং সাধারণ মানুষ না বুঝেই সেগুলো কিনছে। কালারিং দেখতে ভাল এবং সুগন্ধিযুক্ত সেনিটাইজার বলে অনেকেই সেই সেনিটাইজার কিনছে। কিন্তু সেই সেনিটাইজার শরীরের পক্ষে কতটা লাভবান তা বোঝা খুব মুশকিল আর যদি সরকারের থেকে এই নিয়ম চালু করা হয় তাহলে বাজারে আরো ছড়িয়ে পড়বে নকল স্যানিটাইজার। সাধারন মানুষের না বুঝে বাইরে থেকে আকৃষ্ট হয়ে সেই জিনিস গুলো ব্যবহার করবে। তাই কেন্দ্র সরকারের দাবিতে ওষুধ প্রস্তুতকারক এর এক সংগঠন অল ইন্ডিয়া অর্গানাইজেশন অফ কেমিস্ট এন্ড ড্রাগিস্ট সংস্থা এই নিয়ম মেনে নিতে বাধ্য নয় এবং তারা একতরফা প্রতিবাদ জানিয়েছে।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন