ধৃত কলকাতায় দুটি লাইসেন্সে হীন ভুয়ো সানিটাইজার বিক্রির দোকানীরা

0
Two shopkeepers in Kolkata have filed a case for the sale of fake Sanitizer
লাইসেন্স ছাড়া সেনিটাইজার বিক্রির জন্য মামলা দায়ের করলো পুলিশ

হাজার সংবাদ ডেস্ক: এখন মানুষের কাছে নিত্য প্রয়োজনীয় একটি জিনিস হ্যান্ড স্যানিটাইজার। যা ছাড়া মানুষ একমুহূর্ত চলতে পারে না কোন পরিস্থিতিতে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে গেলে হ্যান্ড স্যানিটাইজার খুব দরকার। করোনা পরিস্থিতিতে মাস্ক যেমন জরুরী তার সাথে সাথে হ্যান্ড সেনিটাইজার এটা একটা গুরুত্বপূর্ণ জিনিস যা ছাড়া মানুষ একপা চলতে পারবে না। এটি এমন একটি জিনিস হয়ে উঠেছে যে মানুষ প্রতিনিয়ত প্রতি মুহূর্তে দরকার বলে মনে করে। তাই দেশের সমস্ত মানুষ বাড়িতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার শেষ হওয়ার আগেই আরও একটি ফাইল কিনে রাখে। আর এই সুযোগেই বাজারে কালোবাজারি হ্যান্ড স্যানিটাইজার ছেয়ে গেছে প্রত্যেকটা দোকানে কালোবাজারি স্যানিটাইজার বিক্রি করছে দোকানিরা সাধারণ মানুষ জানতে ও বুঝতে পারছে না।

প্রশাসনের তরফ থেকে কলকাতার বিভিন্ন দোকানে টহলদারি চালিয়ে দেখা গেছে যে বেশ কিছু দোকানে কালোবাজারিদের বিক্রি করা হচ্ছিল। তার মধ্যে বুধবার দিন চোরা খবর পাচার হওয়ায় পুলিশ সূত্রের খবর অনুযায়ী তারা দুটি দোকানে টহলদারি চালায় এবং সেখান থেকে 1400 লিটার স্যানিটাইজার বাতিল করে। যা বিক্রি হচ্ছে কোম্পানিহীন সেনিটাইজার নামে যার কোন লাইসেন্স নেই। তাই এই দওোকানিদের নামে ১২০বি, ২৭০, ও ৪২০ ধারা মামলা দায়ের করা হয়। পুলিশ প্রশাসনের টহলদারিতে বাতিল হয়েছে দু’টি দোকান কিন্তু তাছাড়াও কলকাতায় আরো বহু দোকান রয়েছে যেখানে স্যানিটাইজার বিক্রি হচ্ছে লাইসেন্স ছাড়া। তা প্রসাসনের নাগালের বাইরে।

পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য যে যেমনভাবে চাইছে শেষ এমনভাবেই ঠকিয়ে যাচ্ছে সাধারণ মানুষকে কিন্তু তা একেবারেই উচিত নয় এই ভুসারি টাইগারের জন্য সমস্যা হতে পারে বিভিন্ন ধরনের স্কিন প্রবলেম আসতে পারে, সাথে সাথে আরো অনেক সমস্যা আসতে পারে। তা না ভেবে শুধুমাত্র নিজেদের আখের গোছাতে যে সমস্ত দোকান স্যানিটাইজার বিক্রি করছে তাদের যথাযথ শাস্তি হওয়া দরকার রয়েছে।

এরমধ্যে কেন্দ্র সরকার জানিয়েছে লাইসেন্স ছাড়া স্যানিটাইজার বিক্রি করা যাবে কিন্তু এই নিয়মে বেশ কিছু ওষুধ প্রস্তুতকারকরা বিরোধী মত প্রকাশ করেছে। তারা জানিয়েছে লাইসেন্স নিয়ে এখনো পর্যন্ত দেশের বহু দোকান রয়েছে যেখানে সেনিটাইজার বিক্রি হচ্ছে কিন্তু লাইসেন্স ছাড়া যখন সরকার জানিয়েছে তখন আরো অনেক বেশি মাত্রায় বেড়ে যাবে ভুয়ো সেনিটাইজার বিক্রির ধুম। শুধু কলকাতাতে নয় দেশের বিভিন্ন প্রান্তে এইরকম ভাবে প্রশাসনের চোখ এড়িয়ে স্যানিটাইজার বিক্রি হচ্ছে তা কম্পানিহিন এবং দোকানের লাইসেন্স ছাড়া। ব্যাঙ্গালুরুতে অধিক পরিমাণ স্যানিটাইজার বাতিল করা হয়েছে এই কারনে। বিক্রি করছে বহু দোকান যে গুলো প্রশাসনের সামনে আসছে সেগুলি শুধুমাত্র সেই বাতিল করা হচ্ছে। কিন্তু বাকি দোকান গুলি কিভাবে ধরা যাবে এবং প্রশাসনের আয়ত্তে আনা যাবে তা যথেষ্ঠ চিন্তার। তার মধ্যে কেন্দ্র সরকারের এই নিয়ম যথেষ্ট প্রভাব ফেলেছে এই ব্যবসায়ীদের ওপর। তারা আরো সাহস পেয়ে গেছে ভুয়ো সেনিটাইজার বিক্রির ব্যবসা এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন