২১ জুলাই সভা হবে তবে ধর্মতলায় নয়, মুখ্য মন্ত্রীর বাড়িতে

0
This year's virtual meeting will be on July 21
ভার্চুয়াল সভার আয়োজন হয়েছে ২১ জুলাই দিন

হাজার সংবাদ ডেস্ক: একুশে জুলাই তৃণমূলের জন্য খুব ভালো একটি দিন। যেদিন তৃণমূল খুব গুরুত্বপূর্ণ ভাবে পালন করে এই একুশে জুলাই দিনটি। ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল এর সামনে বড় বাধা মঞ্চের উপর দাঁড়িয়ে নেত্রীর নেতৃত্ব শোনার জন্য মানুষের ঢল নামে রাস্তায়, ঠাসাঠাসি ভাবে দাঁড়িয়ে থাকে জলে ভেজে তাও মানুষের হেলদোল নেই, কেউ সরে যায় না সেই জায়গা থেকে। 21 শে জুলাই শহীদ দিবস হিসেবে তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে খুব সুন্দর এবং গুরুত্বপূর্ণ একটি সভার আয়োজন করে তৃণমূল কংগ্রেস। সেখানে প্রত্যেকটা জায়গা থেকে বহু মানুষ সেখানে যায় এবং খোলা মঞ্চের সামনে দাঁড়িয়ে সারাদিন অপেক্ষা করেও কারোর কষ্ট হয়না।

একুশে জুলাই দিনটি হঠাৎ করেই এবছর একটু অন্যরকম ভাবে পালন হবে। ধর্মতলায় বন্ধ হয়ে যাচ্ছে একুশে জুলাই শহীদ দিবস পালন। তৃণমূল কংগ্রেস এ বছর আর কোন সভা ডাকতে পারবে না। করোনা পরিস্থিতিতে রাজ্যের অবস্থা যে রকম তাতে কোনো ভাবেই সভা ডাকা সম্ভব নয়। যেখানে প্রতিনিয়ত মানতে হচ্ছে সোশ্যাল ডিস্ট্যান্স। এ বছর অনেক আগে থেকে কোনো প্রস্তুতি নেই তবে তাই বলে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রত্যেকটা সদস্য এবং নেতার মন্ত্রী কাছে কোন সুযোগ নেই ঠিকই কিন্তু নতুন নিয়মে ভার্চুয়াল সবার জন্য আগ্রহী সবাই। কেমন ভাবে পালন হবে তা দেখার জন্য সবাই উদ্বিগ্ন। এই বছর এই প্রথম তৃণমূল কংগ্রেস সভা এভাবে করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই সভা হবে কি হবে না তা নিয়ে বহু দ্বন্দ্ব ছিল সবাই এর মধ্যে করোনা পরিস্থিতিতে যা অবস্থা ছিল তাতে ঠিক করা হয়নি কিন্তু এখন তৃণমূল কংগ্রেস থেকে জানানো হয়েছে ভার্চুয়াল সবার মাধ্যমেই সম্পন্ন করা হবে।

আরও পড়ুনঃ বিধি মেনেই দুর্গা পুজা হবে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী!

সবকিছু থেকেও কিছু নেই, একুশে জুলাই দিনটি রয়েছে কিন্তু হারিয়ে গেছে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল এর সামনে ঠাসাঠাসি ভাবে দাঁড়িয়ে থাকা নেতা মন্ত্রীর সহ নেত্রীর ভাষণ। তবে এভাবে পালন হলেও তার যে কোন ত্রুটি রাখবেন না জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিভাবে পালন হবে এবং সেই দিনটি কিভাবে পালন করা হয় তা নিয়ে অনেক কথা বলেছেন। বহু বিধিনিষেধ মেনে যদিও এবার একুশে জুলাই পালন হবে কিন্তু সেই বিধি-নিষেধ কি কি তা নিয়ে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

অন্যান্য বছর রাজ্যের সমস্ত প্রান্ত থেকে তৃণমূল নেতাকর্মীরা ধর্মতলা আসে। এবছর যেহেতু কলকাতায় আসতে পারছে না সেইজন্য প্রত্যেকটা বুথে এই আয়োজন করা হবে শহীদ স্মরনের। কর্মীরা একুশে জুলাই এর জন্য এ বছর নতুন করে একটি গান বাজানো হবে এবং সেই গানটি একুশে জুলাই দিন সকাল থেকে বাজানোর কথা বলা হয়েছে প্রত্যেক বুথে। সকাল থেকে দুটো পর্যন্ত সমস্ত নিয়মকানুন সম্পূর্ণ করার কথা জানিয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তারপর থেকে শুরু হবে তৃণমূল নেত্রীর ভাষণ যদিও তা ধর্মতলা তে নয় কালীঘাটে তার বাড়িতেই অনুষ্ঠিত হবে এই অনুষ্ঠান।

আরও পড়ুনঃ বাজারে আসতে চলেছে করোনার ভ্যাকসিন, জানালেন রুশো বিজ্ঞানীরা

ভার্চুয়াল মাধ্যমে হবে এই সভা অনলাইন থেকে শুরু করে সমস্ত লাইভে দেখতে পাবে মন্ত্রীর ভাষণ। তবে ভিক্টোরিয়া হাউসের সামনে যেমন শহীদ স্মরণের ব্যবস্থা করা হতো সেভাবেই সমস্ত ব্যবস্থা করা হবে। সেই ব্যবস্থা তে উপস্থিত থাকবে সুব্রত বক্সি তিনি তৃণমূলের পতাকা উত্তোলন করবেন এবং সাথে শহীদ বেদীতে মাল্যদান করার কথা বলা হয়েছে। সেখানে সমস্ত কাজ সেরে আসবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ী কালীঘাটে। কর্মীদের কাছে নির্দেশ রয়েছে একুশে জুলাই এর দিন সমস্ত বুথে একুশে জুলাই এর জন্য বানানো গান বাজাতে এবং তার আগে শহীদ বেদীতে স্মরণ করে একটি আনুষ্ঠানিক সূচি রাখা কথা বলেছেন। তারপর দুটো থেকে লাইভে আসবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেখানেই ভাষণ রাখবেন তিনি।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন