করোনা রখতে বৈঠক কেন্দ্রের, এবার সেই বৈঠকে থাকবে বাংলার মুখ্য মন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

0
This time the meeting center with all the states to stop Corona
সব রাজ্যের সাথে বৈঠক কেন্দ্রের

হাজার সংবাদ ডেস্ক: দেশে তথা প্রত্যেক রাজ্যের পরিস্থিতি যথেষ্ট ভয়ানক রূপ নিয়েছে। এখন প্রত্যেক রাজ্যে লকডাউন শেষ হয়নি। অথচ দীর্ঘদিনের লকডাউন এরপর কোন ফল পাইনি দেশ। এবার প্রত্যেক রাজ্যে দফায় দফায় লকডাউন চালিয়েছে তাতেও কোনো ফল হয়নি এখনো পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন রাজ্যের চলছে লকডাউন। কোথাও সপ্তাহে দুদিন আবার কোথাও বা টানা এক সপ্তাহ। তবে তা কোনোভাবে ফলতো প্রকাশ পাচ্ছে না, এত লকডাউন এরপরেও কাজে লাগছে না আটকানো যাচ্ছেনা সংক্রমণ।

করোনাভাইরাস নিয়ে বহুবার সর্বদলীয় বৈঠক ডেকেছে কেন্দ্র থেকে এবং সেই বৈঠকের মধ্যে বিভিন্ন রাজ্য উপস্থিত থাকলেও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উপস্থিত ছিলেন না। বিভিন্ন অজুহাতে এড়িয়ে গেছেন সেই বৈঠকে। তবে এবার 27 জুলায় বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রত্যেকটা রাজ্য বিভিন্নভাবে বিভিন্ন প্রচেষ্টায় চালাচ্ছে লকডাউন তথা বিভিন্ন বিধিনিষেধ কিন্তু তা সত্বেও কোনোভাবেই আটকানো যাচ্ছে না এই মহামারী।

এর আগে সর্বদলীয় বৈঠকে জানানোর জন্য 13 টি রাজ্য বাছা হয়েছিল তার মধ্যে পশ্চিমবঙ্গ ছিল কিন্তু তখন পশ্চিমবঙ্গে হাজার সমস্যা হওয়ার সত্তেও কোনভাবেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই বৈঠকে আসেনি এবং উল্টে বিজেপি নিয়ে কটাক্ষ করে কথা বলতে ছাড়েননি তিনি। কিন্তু এবার এই বৈঠকে থাকবে মুখ্যমন্ত্রী এবার বাংলার ভবিষ্যৎ চিন্তা করে তিনি এই বৈঠকে যাবেন তিনি জানিয়েছেন। সূত্রের খবর অনুযায়ী জানা গিয়েছে এই বৈঠকে তিনি রাজ্যের কথা বলবেন এবং কিভাবে তা সংক্রমণ কমান হাত থেকে বাঁচানো যায় তার সুরাহা নেবেন বলে জানিয়েছেন এই বৈঠকে।

করোনা শুরু হওয়া থেকে এখনো পর্যন্ত কিভাবে সংক্রমণ প্রতিরোধ করা যায় তার চেষ্টা করছে সবাই তবে এখানে জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে ভাবা উচিত। প্রথম থেকেই রাজনৈতিক দলগুলো সামনে এসেছে বটে কিন্তু তখন বোঝা যায়নি যে প্রত্যেকটা দলের মধ্যে রাজনীতি রয়েছে। তবে তা নিয়ে কথা বলতে বিজেপির সাংসদ লকেট চ্যাটার্জি দুদিন আগেই জানিয়েছে যে এইরকম একটা মহামারীর সময় কোন রাজনৈতিক দলকে উপরে করার দরকার নেই। এখন দরকার দেশকে বাঁচানোর দেশ বাঁচলে বাঁচবে রাজনীতি। সবক্ষেত্রে রাজনীতি চলে না জানিয়েছে লকেট চ্যাটার্জি।

তাছাড়াও তিনি জানিয়েছিলেন আমি যখন করোনায় অসুস্থ হয়েছিলাম তখন আমাকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ফোন করেছিলেন এবং তিনি জানিয়েছিলেন অনেক বার চেষ্টা করার পর আমার ফোনে পেয়েছেন। আমি কেমন আছি আমাকে ভালো থাকার জন্য অভিনন্দন জানিয়েছিলেন তার সাথে আমিও তার ভালো থাকার কামনা করেছি। আমার মনে হয় এটা রাজনীতির সময় নয় শুধুমাত্র নিজেদের দলকে বড় করার সময় এটা নয়। এখন দেশকে বাঁচানোর সবথেকে বড় লক্ষ্য আমাদের। সেখানে কোন দলই রাজনৈতিক প্রকাশ করছে না। কে বিজেপি কে তৃণমূল আর কে কংগ্রেস এটা নিয়ে ভাবার সময় এখন কোন রাজনীতিবিদের নেই এখনো পর্যন্ত আমরা দেশের হয়ে লড়ছি একইভাবে সবাই একসাথে লড়বো এই ভাইরাস কে দূরে সরানোর জন্য।

তবে এবার এক অন্যরূপ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, এবার থাকবেন প্রধানমন্ত্রী বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী একসাথে বৈঠক করবেন বলে জানিয়েছেন এবং সমস্ত সমস্যা জানাবেন বাংলা নিয়ে। একের পর এক অন্য রাজ্য তথা দেশ যেমনভাবে সংক্রমণ বাড়ছে একই ভাবে বেড়ে চলেছে বাংলায়। সমস্ত সমস্যা কিভাবে সমাধান করা যায় তা নিয়ে মতামত নেবেন এই বৈঠকের মাধ্যমে।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন