পুজোর আগেই ভ্রমন রসিক বাঙ্গালির জন্য ছাড়! ২রা অক্টোবর থেকে শিয়ালদাহ পুরি এক্সপ্রেস চলবে

0
The Sealdah Puri train will run from October 2
শিয়ালদাহ থেকে পুরী

হাজার সংবাদ ডেস্ক: পুজোর আগে ভ্রমণ রসিক বাঙ্গালীদের জন্য খুশির খবর। বহুদিন ঘরবন্দি হয়ে থেকে মানুষ উদগ্রীব হয়েছে ভ্রমণে যেতে। কিন্তু করোনা সংক্রমণ বাধা মানছে কোথায় তার জন্য একটু ভয় পেলেও ঘুরতে যাওয়ার নেশায় বিভোর হয়ে রয়েছে মানুষ। একটু ছাড় মিললেই মানুষ চলে যাবে পর্যটনকেন্দ্রগুলোতে নিজেদেরকে একটু মনোন্নয়নে আনন্দ দিতে। এর আগেও আমরা শুনেছি দিঘাতে বিভিন্ন পর্যটকরা যাচ্ছে ছুটির দিন দেখে, সাপ্তাহিক দিনগুলিতেও তবে সেখানেও গিয়ে তাঁরা যথেষ্ট আনন্দ করছে। খুব বেশি ভিড় না হলেও এখনও সমস্ত হোটেল বুকিং নিচ্ছে এবং সেখানকার সমস্ত হোটেলগুলোতেও আলাদা আলাদাভাবে পরিষেবা চালু হয়েছে।

এবার ভ্রমণ রসিক বাঙ্গালীদের জন্য আরও একটি নতুন ছাড় – শিয়ালদা থেকে চলবে ট্রেন অর্থাৎ পুরী যাওয়ার জন্য এবার আর বাস নয় এবারে চাইলে ট্রেনে যেতে পারবে মানুষ। আগে শিয়ালদা থেকে ভুবনেশ্বর ট্রেন ছিল তা পরিবর্তন হয়ে শিয়ালদা ভুবনেশ্বর ট্রেন টিকে বদলে এখন শিয়ালদা-পুরী ট্রেনে করে দেওয়া হয়েছে। এই ট্রেনটা আগে ভুবনেশ্বর পর্যন্ত যেত এখন সেই ট্রেনের সফর বাড়ানো হয়েছে জনস্বার্থে। রেলের তরফ থেকে জানানো এই খবর সবার জন্য যথেষ্ট আনন্দদায়ক শুধুমাত্র আপ ট্রেন যাচ্ছে এমনটা নয় পুরি থেকে আবারো সেই ট্রেন ফিরছে শিয়ালদা। পুরি টু শিয়ালদা এখন ট্রেন চলবে। অক্টোবর ২ তারিখ থেকে মিলছে এই ছাড়। তারপর থেকে নিয়ম করে সপ্তাহে ২ দিন করে চলবে এই ট্রেন।

পুজোর আগে পর্যটকদের কাছে পর্যটন কেন্দ্রের এই নয়া সুযোগ হাতছাড়া করবে কে। সবাই চাইবে পুজোর আগেই একটু ঘুরে আসুক বা পূজার মধ্যে যাওয়ার পরিকল্পনা করবে। রেলের এর তরফ থেকে এই ছাড় জনস্বার্থে যথেষ্ট আনন্দ দেবে। তার মধ্যে জানানো হয়েছে এই ট্রেনের টিকিট কবে থেকে পাওয়া যাবে? ট্রেনে যেতে হলে টিকিট কাটতে হবে আর মানতে হবে বেশ কিছু বিধিনিষেধ। কবে থেকে পাওয়া যাচ্ছে এই টিকিট। এখনই পাওয়া যাচ্ছে টিকিট চাইলে এখন কাটা যাবে তবে এই টিকিটের ভাড়া একটু বেশি কারণ এই ট্রেন অনেক বেশি দ্রুত গতিতে দৌড়াবে। রাজধানীর মতো দ্রুত গতিতে চলবে তাই খরচ খরচ রাজধানীর মত। শিয়ালদা থেকে খুব কম সময়ে পৌঁছে দেবে তার জন্যই টিকিট খরচ বেশি।

শিয়ালদা থেকে পুরী ট্রেন ছাড়বে ট্রেন সন্ধে ৮.০০ এ শিয়ালদা থেকে ছাড়বে ৮.৩৫ এ পৌঁছাবে এবং ডাউন ট্রেনটি সন্ধে ৭.২০ মিনিটে ছাড়বে ট্রেন ভোর ৮.২০ মিনিটে শিয়ালদা তে নামাবে। তাই যথেষ্ট দ্রুত গতিতে চলবে এই ট্রেন তার জন্য ভাড়া একটু বেশি বটে কিন্তু মানুষ অনেক বেশি সুবিধা পেয়েছে অন্ততপক্ষে পর্যটক প্রেমিদের জন্য। এই ট্রেন চলবে সপ্তাহে দুদিন সোমবার এবং শুক্রবার।

আর ট্রেনে সফর করতে গেলে আগের নিয়ম অনুযায়ী কি বিধিনিষেধ মানতে হচ্ছে এই ট্রেনে উঠতে গেলে। তাও জানা যাক করোনা সংক্রমনের জেরে প্রত্যেকটা ট্রেনে সফর করতে গেলে এখন মানতে হবে বেশ কিছু বিধিনিষেধ একগাদা বিধিনিষেধের ওপর মানুষ হয়রান হয়ে উঠেছে। একের পর এক বিধিনিষেধ চলছে মানুষের ওপর এই ট্রেনের সফর করতে গেলে এখন মানুষকে মানতে হবে কিছু বিধিনিষেধ যেমন মুখে মাক্স থাকতে হবে তার সাথে নরমাল একটা চেকআপের পরে ট্রেনে উঠতে দেওয়া হবে। যদি নরমাল চেক আপের পর কারো শরীর অসুস্থ থাকে তাহলেও তাকে ট্রেনে তোলা হবে না তার টিকিট কনফার্ম হয়ে থাকলেও তাকে ট্রেনের সফর করতে দেওয়া যাবেনা। থার্মাল চেকিং এরপরেও যদি কারো টেম্পারেচার নির্ধারিত টেম্পারেচার এর থেকে বেশি হয় তাহলেও তাকে কনফার্ম টিকিট থাকলেও ট্রেনে চড়তে দেওয়া যাবেনা। ট্রেনের সফর করতে হলে এই দুটো বিধিনিষেধ মানতে হবে।

এর সাথে সাথে দূরত্ব অবশ্যই দূরত্ব বিধি মেনেই সবাইকে যাতায়াত করতে হবে এবং সফর করতে গেলে মানতে হবে এবং যে যার সুরক্ষার জন্য স্যানিটাইজার হ্যান্ড গ্লাভস ইত্যাদি তারা ব্যবহার করতেই পারে। তবেই এখন সফর করা সম্ভব তবে পুজোর আগেই এই ছোট্ট একটা নিউজ মানুষের মনে অনেক বেশি আনন্দ দেবে এবং অনেক বেশি আনন্দ আপ্লুত হবে পর্যটনকেন্দ্র ভালোবাসে অর্থাৎ ভ্রমণ রসিকরা।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন