করোনার ভয় এখন বাচ্চাদের নিয়ে! দ্বিতীয় ঢেউয়ে বাচ্চাদের উপর করোনা আঘাত হেনেছে গুরুতর ভাবে। কি কি লক্ষন দেখে বুঝবেন তা জেনে নিন

0
The coronavirus is terrible on children
বাচ্চাদের জন্য ভয়ের কারন করোনা

হাজার সংবাদ ডেস্ক: দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশের বিভিন্ন জায়গায় এবং বিভিন্ন রাজ্যের অবস্থা খুব ভয়াবহ এই করণা পরিস্থিতিতে তবে কিভাবে সেই পরিস্থিতি সামাল দেওয়া যাবে তা এখনো সঠিক পদ্ধতি নির্বাচিত হয়নি। ঠিক তার মধ্যেই আবার করোনা পরিস্থিতি বাড়তে শুরু করেছে বাচ্চাদের মধ্যে। প্রথম দিকে যেমন প্রাপ্তবয়স্ক থেকে শুরু করে 18 বছরের উর্ধ্বে সমস্ত মানুষের মধ্যে করনা প্রকোপ বেশি ছিল এখন তা বাচ্চাদের মধ্যে সে তুলনায় অনেক বেশি বাচ্চাদের মধ্যে ছরাচ্ছে।

আপনার বাচ্ছার মধ্যে বেশকিছু উপলক্ষ দেখলে আপনি সরাসরি ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করুন এবং করণা ট্রিটমেন্ট এর জন্য অগ্রাধি ভুমিকা নিন। বাচ্চাদের মধ্যে যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে এবং যে লক্ষণ দেখা যাচ্ছে এই করণা পরিস্থিতিতে। কি কি লক্ষণ দেখলে আপনি বুঝবেন যে কোন বাচ্চাদের মধ্যে করোনা পজিটিভ? বহু বাচ্চাদের মধ্যে সঠিকভাবে সঠিক পরিস্থিতিতে তাদেরকে চিকিৎসা করাতে হলে জানতে হবে তার লক্ষণ কি কি? করণা ট্রিটমেন্ট এর আগে জানা দরকার তা আদৌ করনা হয়েছে কিনা এবং কি কি লক্ষণ দেখে বুঝবেন আপনি

প্রথমত জ্বর হলে তিন দিনের মধ্যে যদি সেই জ্বর কমে যায় তাহলে চিন্তা করবেন না কিন্তু যদি পাঁচ দিনের মধ্যে জ্বর না কমে তাহলে আপনি সরাসরি ডাক্তারের সাথে চিকিৎসার জন্য কথা বলুন।

একটা বড় সমস্যা যেটি হল আপনি খেয়াল রাখবেন আপনার বাচ্চার পেটে সমস্যা যাতে না হয় পেটের সমস্যা থেকে এই রোগের সবথেকে বড় লক্ষণ। যদিও বড়দের ক্ষেত্রে ফুসফুসের যে আঘাত হানছে করোনা ভাইরাস তবে বাচ্চাদের মধ্যে সেই রকম পরীক্ষায় ধরা পড়েনি। তবে বাচ্চাদের ক্ষেত্রে পেটের সমস্যা হতে পারে যেমন ডায়রিয়া এছাড়াও হজম হচ্ছে না বা খিদে পাচ্ছে না বা পেটে বায়ু জমে আছে পেট সারাক্ষণ ফুলে আছে বা খেলা ধুলা করতে পারছে না, পেট ব্যাথা করছে। এছাড়াও পেটের জন্য একটা অস্বস্তি বোধ মনে করছে খিদে পাচ্ছে কিন্তু খাওয়ার ইচ্ছে নেই এইরকম যদি কোনো পরিস্থিতি হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই আপনি ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন সাথে অল্প জ্বর থাকতে পারে।

আবার যদি আপনি দেখেন আপনার শিশুর বা আপনার বাচ্চার গায়ের অদ্ভুত ধরনের র‍্যাশ ভর্তি হয়ে গেছে তা আগে কখনো বা আপনার বাচ্চার গায়ে দেখেননি এবং তার সাথে সাথে সামান্য জ্বর সর্দি-কাশি এগুলো যদি লেগেই থাকে তাহলে সরাসরি ডাক্তারের সাথে পরামর্শ নিন। কারণ এই রোগটা সবথেকে বড় করোনার লক্ষণ ও হতে পারে কারণ কার কিভাবে লক্ষণ দেখা দেবে তা হয়তো বোঝার উপায় খুব কম কারণ বাচ্চাদের ক্ষেত্রে আমরা অনেক কিছুই বুঝতে পারি না কারণ তারা অনেকেই বোঝাতে পারে না তাদের কি হয়েছে বা হচ্ছে।

তাই আপনাদেরকে বুঝে নিতে হবে যেকোনো ভাইরাল অসুখের মূল উৎস হলো জ্বর তাই আপনার যদি শিশুসন্তানের জ্বর আসে এবং তার সাথে সাথে ক্লান্তিভাব 102 এর ওপর 4 থেকে 5 দিনের বেশি জ্বর এইরকম কিছু সিমটম আপনি দেখতে পেলে অবশ্যই ডাক্তারের সাথে পরামর্শ নিন। প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য যে ট্রিটমেন্ট বাড়িতে করা সম্ভব তা হয়তো বাচ্চাদের ক্ষেত্রে বাড়িতে সম্ভব নয় তাই অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নেবেন এবং নিজেদের যদি বাড়িতে কোনো ফিজিশিয়ান থাকেন তাহলে তার সাথে কথা বলতে পারেন। কিন্তু অবশ্যই করে বাচ্চাদের দিকে খেয়াল রাখুন বাইরে বের হতে দেবেন না মাক্স পরান বাড়িতে খেলাধুলা করার ব্যবস্থা রাখুন সমস্ত কিছু খেয়াল রাখুন। কারণ বড়দের থেকে বাচ্চাদের ভয়াবহতা অনেক বেশি। তাই আপনাকে সচেতন হবে হতে হবে এবং তার সাথে সাথে আপনার বাচ্চাকে ও অনেক বেশি প্রটেক্ট করে রাখতে হবে আপনাকেই। তাই সুস্থ থাকুন সাবধানে থাকুন বাড়িতে থাকুন আর সবাইকে খেয়াল রাখুন।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন