আগস্ট মাসে কোন কোন দিন থাকবে লকডাউন, আর কি কি ছাড় মিলল এই ঘোষণায়! জেনে নিন

0
The Chief Minister announced a complete lockdown for 9 days in August
৯ দিন সম্পূর্ণ লকডাউন আগস্ট মাসে

হাজার সংবাদ ডেস্ক: জনকল্যাণে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মঙ্গলবারের বৈঠকে জানিয়েছেন এবং কিভাবে লকডাউন চলে সংক্রমণ আটকাতে পারবে। তাছাড়াও আরো কি কি বিধি নিষেধ এবং নিয়মকানুন নিয়ে এগিয়েছেন। তিনি মঙ্গলবারের বৈঠকে জানিয়েছেন তিনি বলেছেন বেশকিছু বিধিনিষেধের জন্য তিনি সময়সীমা দিয়েছিলেন ক্যালেন্ডারে সময়সীমা না দেখায় আনুষ্ঠানিক সময়সূচী নাদেখায় প্রথম যে লকডাউনে তারিখ নির্বাচন হয়েছিল, তারপরে আবার বদলানো হয়েছে লকডাউনের সময়সীমা।

সপ্তাহে দুদিন লকডাউন এর জায়গায় আগস্ট মাসে দুই সপ্তাহে একদিন করে এবং আর দুটো সপ্তাহে দুদিন করে লকডাউন হবে। প্রথম সপ্তায় ২ এবং ৫ তারিখে হবে তারপরে ৮ এবং ৯ তারিখে ১৬ এবং ১৭ তারিখে এবং 2১ এবং 2৩ তারিখে, ২৯ এবং ৩০ তারিখে লকডাউন থাকবে আগামী আগস্ট মাসে। প্রথমে নির্বাচিত দিন সাথে সাথেই পরিবর্তন করেছেন বেশ কিছু আচারানুষ্ঠান থাকার জন্য। অনুষ্ঠানসূচি রয়ে গেছে যেমন মুসলিমদের বকরি ঈদ এবং হিন্দুদের রাখি পূর্ণিমা তাছাড়া রয়েছে গণেশ চতুর্থী এই রকম বেশ কয়েকটি নিয়ম এর জন্য বদলাতে হয়েছে লকডাউন এর সময়সীমা। এই কয়েকটি দিন অর্থাৎ এই নটা দিন সম্পূর্ণ লকডাউন থাকবে সারাদিন।

তাছাড়াও তিনি ঘোষণা করেছেন যে সমস্ত করোনা সংক্রামিত রোগী মারা যাবার পর আত্মীয়স্বজনদের হাতে দেওয়া হচ্ছিল না এবার বাড়ির লক নিজের পরিজনদের মৃতদেহ দেখতে পাবে এবং সৎকার করতে পারবে পরিজনরা মারা যাবার পর তাদের মৃতদেহ বাড়ির লোকজনদের ঘাটে দেওয়া হচ্ছিল না। শুধুমাত্র ফোন মাধ্যমে জানানো হচ্ছিল আক্রান্ত ব্যক্তিরা মারা গেছে কিন্তু এবার আর তা নয় আইসিএমআর পদ্ধতি চালু হওয়ার পর এবার থেকে ।মৃতদেহ আত্মীয়-পরিজনদের হাতে দেওয়া হবে সৎকার করার সুযোগও দেওয়া হবে তাদের।

এছাড়াও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় ঘোষণা করেছেন যে সমস্ত ছাত্র ছাত্রীদের জন্য কলেজ খোলা হয়নি এতদিন করোনা ভাইরাসের জন্য। আগে তা নিয়ে অভিভাবকদের মতামত জানাতে বলেছিল কেন্দ্র। কিন্তু মঙ্গলবার বিকেলের ঘোষণা অনুযায়ী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন 5 সেপ্টেম্বর শিক্ষক দিবস পালনের সময় যদি দেখা যায় কোন সংক্রমণ কিছুটা গেছে কিছুটা কমানো গেছে। তাহলে স্কুল-কলেজ আবার চালু করা হবে তবে একদিন ছাড়া একদিন অর্থাৎ একদিন স্কুল বসলে আরো একদিন ছুটি থাকবে তবে সেটা পরিস্থিতি বিবেচনা করে যদি এই মাসের এই কয়েকদিন থাকার পর ছাত্র-ছাত্রীদের শারীরিক স্বাস্থ্য বজায় রেখে করা সম্ভব হয় তাহলে কিন্তু যদি শুরু হয় তাহলে এই নিয়ম পালন করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন