বারোয়ারি দুর্গা পুজা বন্ধ করার দাবিতে কোলকাতা হাই কোর্টে মামলা! আজ সেই মামলার সুনানি

0
stop theme puja in kolkata for avoiding corona infection
বারোয়ারি পুজা বন্ধ করার মামলা হাই কোর্টে

হাজার সংবাদ ডেস্ক: কয়েকদিন পরেই পুজো আর তার আগেই কলকাতা হাইকোর্টে পুজো বন্ধ হওয়া নিয়ে মামলা দায়ের করল জনস্বার্থে। মামলাকারীর একমাত্র স্বার্থ এটাই সে বারবার জানাচ্ছে যে বারোয়ারি পুজো থেকে ছড়াতে পারে করণা সংক্রমণ জনস্বার্থে করা হয়েছে এই মামলা তিনি বারবার বলছেন যে এই বারোয়ারি পুজো গুলি হলে কিংবা এমনি পুজো গুলি হলে তাতে সমস্যা বাড়তে পারে সাধারণ মানুষের পুজোর পরে করোনা প্রকোপ অনেক বাড়বে। বারবার সেই কথাই কেরালা ওনাম অনুষ্ঠানের কথা বলেছেন কারন কেরালা ওনাম পুজোর জন্য কেরালার যে অবস্থা হয়েছে তাদের সবার শিক্ষা হওয়া দরকার আর এই রাজ্যে পুজো যদি হয় তাহলে করণা সংক্রমণ যেটুকু কমেছে তার তিন গুণ বাড়বে পুজোর পর।

বারোয়ারি পুজো বন্ধ করার জন্য আবেদন জানিয়েছে। কয়েকদিন পরেই পুজো সমস্ত ব্যবস্থাপনা শুরু হয়ে গেছে সমস্ত জায়গায় কেউ কেউ প্রস্তুতি শেষ করে ফেলেছে অনেক বড় বড় পূজো। পূজো যারা করে তাদের এখন থেকেই প্যান্ডেল খুলে দেওয়া হয়েছে। এ নিয়ে মামলা চলছে যদিও আজকে সেই মামলার শুনানি এই মামলা হওয়ার একমাত্র তার কারণ এভাবে যদি কোনো সংক্রমণ বাড়তে থাকে আরো কতদিন মানুষ ঘর বন্দী হয়ে থাকবে। এখন করোনা সংক্রমনের যেখানে নামতে শুরু করেছে সেখানে পুজো অনেক বেশি ভয়াবহ হয়ে উঠবে বরং তার থেকে অনেক বাড়বে তাহলে কি আরও একটা বছর মানুষ ঘর বন্দী হয়ে কাটাবে কারণ ভ্যাকসিনের কোন দেখা নেই সেইজন্য জনস্বার্থে এই মামলা।

এছাড়া এ রাজ্যে দুর্গাপূজা নিয়ে এত মাতামাতি করছে অথচ মহারাষ্ট্রে যেখানে গণেশ পূজার এত এত জাঁকজমক ভাবে হয় সেই সাবেকিয়ানার গণেশ পুজো বন্ধ ছিল মহারাষ্ট্রের শুধুমাত্র সংক্রমণকে আটকানোর জন্য। করোনা সংক্রমণ রুক্ষতে গেলে অবশ্যই সমস্ত কিছু মানতে হবে এবং তার সাথে আমাদের মাথায় রাখতে হবে কিভাবে মানুষ বেশি সুস্থ থাকবে। হাজারটা নিয়ম পালন করে পুজো করে কোন লাভ নেই কারণ মানুষ এতটা সহজ নয় যার জন্য সংক্রমণ এতটাই বেড়েছে প্রথম থেকে লকডাউন রেখেও কোন কাজ হয়নি কারণ মানুষ সচেতন নয় সেখানে যদি পুজো হয় তার তিন গুণ বাড়বে সংক্রমণ তার জন্যই এই মামলা। যদিও আজকের এই মামলার শুনানি রয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট থেকে কি রায় দেয় সেটাই জানার। জনস্বার্থে পুজো বন্ধ করা একমাত্র কাম্য বলে মনে করছে বহু মানুষ।

কলকাতার বেশ কিছু বারোয়ারি পুজোর প্রস্তুতি চলছে আবার কিছু কিছু থিম পূজার মধ্যে তারা এখনও উদ্বোধন শুরু করে দিয়েছে। কোথাও রাজনৈতিক দলের মাথা তাদেরকে ডেকে উদ্বোধন করছে কোথাও বা সেখানকার মন্ত্রিসভার বিভিন্ন লোকজনকে ডেকে উদ্বোধন করছে। তিন দিন আগে থেকে চালু হয়ে গেছে বিভিন্ন পুজোর উদ্বোধন এর কাজ এবং তার সাথে সাথে দর্শকরাও প্যান্ডেল হপিং শুরু করে দিয়েছে। সেই জায়গায় এই জনস্বার্থ মামলা কতটা প্রভাব ফেলবে সেটা দেখার কারণ জনস্বার্থে যে মামলা হয়েছে শুধুমাত্র কোন একজনকে বিচার করে নয় এই জনস্বার্থ মামলা সারা রাজ্যবাসীর জন্য কারণ বাংলায় দুর্গোৎসব মানে একটা বড় পুজো আর বড় অনুষ্ঠানে এই অনুষ্ঠানে মানুষ আনন্দ করতে গিয়ে ভুলে যাবে করোনার কথা। শুধুমাত্র মন জয় করা কথা দিয়ে করোনা কে হারাবো এমনটা নয় কারণ করণা সংক্রমণ মুখের কথায় বলে না তার থেকেও বড় কথা যেখানে করোনা সংক্রমনের এতটাই নেমে গেছে সেই জায়গা থেকে করোনার সংক্রমণ যদি বাড়তে থাকে তাতে সমস্যা বাড়বে সাধারণ মানুষের। এবং আরো কতদিন ঘর বন্দী হয়ে থাকতে হবে তার কোন হদিস নেই। তার জন্যই এই পুজো আটকানো যাতে যাই তার জন্য এই মামলা।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন