১০ আগস্ট বাজারে মিলবে করোনা ভ্যাকসিন, একধাপ এগিয়ে এবার রুশ বিজ্ঞানীরা

0
Russian scientists have discovered the corona vaccine
১০ আগস্ট বাজারে আসবে করোনা ভ্যাকসিন

হাজার সংবাদ ডেস্ক: এই করোনা মহামারীতে ভ্যাকসিন না আসা পর্যন্ত কোন ভাবেই এই রোগ নির্মূল করা সম্ভব নয় তাও ভ্যাকসিন এল এই মহামারী দূর করতে সময় লাগবে অনেক। প্রথম থেকে শুরু করে এখনো পর্যন্ত প্রত্যেক দেশ যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে ভ্যাকসিন তৈরি করার কাজে। যথাযথ চেষ্টা চালাচ্ছে সমস্ত বিজ্ঞানীরা কিভাবে এই ভ্যাকসিন তৈরি কাজ সম্পন্ন করা যায়। শুধু ভ্যাকসিন তৈরি করলে হবেনা তা কতটা কার্যকরী তার জন্য ট্রায়াল মাধ্যমেও প্রত্যেকটা দেশে ট্রায়ালও চলছে। ভারতে চলছে এই ভ্যাকসিনের ট্রায়াল’। ভারত থেকে জানানো হয়েছিল 15 আগস্ট এর মধ্যে বাজারে আসবে করার ভ্যাকসিন কিন্তু তারপরও ভারত বায়টেক জানিয়ে দেয় এক বছর আগের তা কোনোভাবেই সম্ভব নয়।

তবে এবার সব দেশকে তাক লাগিয়ে রাশিয়া 10 আগস্ট এর মধ্যে বাজারে নিয়ে আসতে চলেছে করোনার ভ্যাকসিন। বেশ কিছুদিন আগেই মার্কিন সংবাদমাধ্যম সূত্র অনুযায়ী জানা গেছিল রাশিয়া একধাপ এগিয়েছে করোনা ভ্যাকসিন তৈরিতে। তারা খুব শীঘ্রই বাজারে লঞ্চ করবে ভ্যাকসিন। এবার তারা দিনক্ষণ ঠিক করে দিয়েছে কবে বাজারে করোনা ভ্যাকসিন দিতে সক্ষম হবে।

গামালেই ইন্সটিটিউড অফ এপিডমলজি অ্যান্ড মাইক্রোবায়োলজি কোভিড ভ্যাকসিন আনতে সক্ষম হয়েছে। সূচনা বিশ্ববিদ্যালয় গত 18 জুন তারা স্বেচ্ছাসেবকদের উপর এই মেডিসিন প্রয়োগ করে ট্রায়ালের জন্য। এবং তারা তখনই জানিয়েছিল যে তারা প্রথম এবং দ্বিতীয় তে যথেষ্ট ভাল ফলাফল পেয়েছে এবং খুব শীঘ্রই বাজারে নিয়ে আসবে এই মেডিসিন। বিশ্বের সমস্ত দেশের কাছে তাক লাগিয়ে দিয়েছে রুশো বিজ্ঞানীদের এই পরীক্ষা পর্যবেক্ষণ। সব দেশে এখন চলছে কিন্তু বিজ্ঞানীরা একদম ভ্যাকসিন তৈরির শেষ পর্যায়ে দাঁড়িয়ে আছে আগামী আগস্টে বাজারে নিয়ে আসবে এই মেডিসিন।

রাশিয়া এই ভ্যাকসিনের ছাড়পত্র পেলে আগামী আগস্ট মাস থেকে বাজারে মিলবে করোনার ভ্যাকসিন এবং অন্যান্য দেশে সেপ্টেম্বরের মধ্যে সেই ভ্যাকসিন পৌঁছাবে বলে জানিয়েছে এক মার্কিন সংবাদমাধ্যম। চলতি বছরে রাশিয়ার জন্য তিন কোটি ডলার উৎপাদন করা শুরু হয়েছে এবং অন্যান্য দেশের জন্য 17 কোটি মেডিসিন তৈরি করার উদ্যোগ নিয়েছে তারা এবং তার কাজ শুরু হয়েছে বেশ কিছুটা। এই ভ্যাকসিন হাতে পাওয়ার সাথে সাথেই করো না যোদ্ধাদের ওপর প্রথম প্রয়োগ করা হবে এই ভ্যাকসিন।

একের পর এক রাশিয়া তাক লাগিয়ে দিচ্ছে, প্রথম ১৯৫৭ সালে উপগ্রহ আবিষ্কার করেছিল রাশিয়া বিজ্ঞানীরা, এবার এই করোনা মহামারীতে যখন দেশের সমস্ত দেশ লড়াই করে চলছে একটা ভ্যাকসিন তৈরি করার জন্য সেই সময় বাজারে সবার আগে রাশিয়া নিয়ে চলেছে এই ভ্যাকসিন। প্রথম যে উপগ্রহ উৎক্ষেপণ করেছিল তার নাম ছিল স্পুটনিক-১ আর সেই উপগ্রহের নাম দিয়ে এবারে একজন হেলথ কর্ণধার জানিয়েছেন মেডিসিন তৈরি একটা স্পুটনিক’ মুহূর্ত এটা। যা আমরা ১৯৫৭ সালে সক্ষম হয়েছিলাম আবারো একিভাবে একটি বড় কাজে সক্ষম হচ্ছি আমরা।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন