পুলিশ কর্মীদের জন্য কয়ারেন্টাইন জোন বানানো হল ইডেন গার্ডেন

0
quarantine is being build in the eden garden
কয়ারেন্টাইন সেন্টার ইডেন গার্ডেন

হাজার সংবাদ ডেস্ক: করোনার ভয়ঙ্কর থাবা বসিয়েছে রাজ্যে। কনটেনমেন্ট জন গুলোকে এখন চলছে কড়া লকডাউন। এখন দরকার বেশ কিছু কয়ারেন্টাইন সেন্টারের। বিবিসিআই এর প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলি জানিয়েছিলেন যে যদি কখনও প্রয়োজন হয় তাহলে ইদেন গার্ডেনকে কয়ারেন্টাইন সেন্টার করতে পারে। কিন্তু তখন রাজ্যে প্রয়োজন পড়েনি কয়ারেন্টাইন সেন্টারের জন্য ইডেন গার্ডেনকে। কিন্তু এখন রাজ্যের অবস্থা যথেষ্ট ভয়াবহ তাই কয়ারেন্টাইন সেন্টার না বাড়ালে সংক্রমণ বাড়তে পারে গোটা রাজ্যের। তাই এবার পুলিশ কর্মীদের জন্য আগামী সপ্তাহ থেকে চালু হবে ইদেন গার্ডেন কোয়ারেন্টাইন জোন। পুলিশ কর্মীদের সাথে থাকতে পারে সংক্রামিত পুলিশ কর্মীর বাড়ির সদস্যরা।

গোটা ইডেন গার্ডেন কে নিয়ে হয়তো এখন কোয়ারেন্টাইন সেন্টার হবে না কিন্তু বেশ ব্লকের জায়গা নিয়েই করা হচ্ছে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার। E,F,G,H ব্লক মিলিয়ে তৈরি হচ্ছে কোয়ারেন্টাইন জোন। যদিও মেনগেট থেকে এখন আক্রান্ত ব্যক্তিদের ঢুকতে দেওয়া হবে না। এখন শুধুমাত্র ১০ এবং ১২ নম্বর গেট থেকে তারা প্রবেশ করবে। নিয়ম অনুযায়ী নিয়মিত সিনিটাইজড করা হবে ইডেন গার্ডেন সমস্ত ব্লক। মাঠ এর সাথে কোন সংযোগ থাকবে না এই কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের। এতগুলো গুলো ব্লকের মধ্যে আবার ভাগ করা হয়েছে দুটো ভাগে যাদের মধ্যে করোনার উপসর্গ অনেক বেশি অর্থাৎ সর্দি-কাশি হাঁপানি এই সমস্ত দেখা গেছে তাদের জন্য আলাদা একটি ব্লক। আর যাদের এই সমস্ত উপসর্গ অনেকটা কম তাদের জন্য আলাদা আর একটি ব্লক। সদস্য যারা থাকবে অর্থাৎ ফ্যামিলির যে সমস্ত সদস্যরা থাকবে তাদের জন্য আলাদাভাবে আরও একটি ব্লক ব্যবস্থা করা হয়েছে।

আলাদাভাবে শুধু B, C, K, L এই কয়েকটি ব্লগ আলাদাভাবে রাখা হয়েছে। এই ব্লকে কোন নিভৃত বাস হবে না। অর্থাৎ প্রথমে যখন এই চিঠি পাস করা হয় কোয়ারেন্টাইন এর জন্য তখন জানানো হয়েছিল মাঠকর্মীরা কোথায় থাকবে? অর্থাৎ তখনই নিশ্চিত করেছিলেন যে মাঠকর্মীদের পুরো দায়িত্ব নিয়ে এই নিভৃতবাসের কথা ভাবা হয়েছে। তাদের যাতে কোন অসুবিধা না হয় সেই চিন্তা করা হচ্ছে। তাই B,L,K এই কয়েকটা ব্লকে থাকবে মাঠকর্মীরা এবং চাইলে প্লেয়ারদের ডাইনিং রুম পর্যন্ত ব্যবহার করতে পারে। মাঠ কর্মীদের এবারে থাকার ব্যবস্থা হয়েছে ক্রিকেটারদের ডরমিটরিতে। এতদিন যেখানে ক্রিকেটাররা থাকতো। প্রেসিডেন্ট অভিষেক ডালমিয়া বলেছেন এই সময় যদি পুলিশ কর্তৃপক্ষ আর সরকারের পাশে দাঁড়াতে না পারি তাহলে দেশের হয়ে কিবা করলাম। আমরা তাই মাঠ পরিচর্চার সমস্ত কর্মীদের স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখেই আমরা নিভৃত বাসের ব্যবস্থা করছি। তাদের জন্য যথাযথ ব্যবস্থা না নিয়ে আমরা নিভৃত বাসের সিদ্ধান্ত নিচ্ছি না।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন