কেন্দ্রের নির্দেশে বাজারে বন্ধ হল N-95 মাস্ক

0
N95 mask can spread the infection of corona
এন ৯৫ মাস্কে করোনা সংক্রমন হতে পারে বেশি

হাজার সংবাদ ডেস্ক: করোনা ভাইরাসের প্রকোপ শুরু হওয়া থেকে এখনো পর্যন্ত মাস্ক ছাড়া মানুষকে চলা বারণ। প্রতিনিয়ত প্রত্যেক মুহূর্তে বাইরে এবং ঘরে প্রত্যেক জায়গায় পড়া বাধ্যতামূলক মাক্স। কারণ এখন গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়ে গেছে তার জন্য মাক্স পড়া একান্ত বাধ্যতামূলক। কিন্তু তার মধ্যেই কেন্দ্র সরকার থেকে বাতিল করেছে n-95 মাস্ক অর্থাৎ যে মাস্ক গুলোর উপর একটি ছিপির মতো অংশ দিয়ে তৈরি করা থাকত সেই সমস্ত ভাল্ব যুক্ত মাস্ক ব্যবহারের বিষেধাজ্ঞা জাড়ি করেছে কেন্দ্র সরকার। যদিও তা বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ অনুযায়ী জানিয়েছিল যে বাতাসেও ছড়াতে পারে করোনা সংক্রমণ তাই বন্ধ করা হচ্ছে এই ভাল্ব যুক্ত মাস্ক।

এই সমস্ত n-95 অর্থাৎ ভাল্ব যুক্ত যে সমস্ত মাস্ক রয়েছে সেই মাস্কের মাধ্যমে যেকোনো ব্যক্তি নিঃশ্বাস-প্রশ্বাস ফেলে সেই নিঃশ্বাস-প্রশ্বাসের জলকণা বাইরে আসতে পারে এবং যদি কোন সংক্রামিত ব্যক্তি পড়ে থাকে তাহলে তার পাশে থাকা যেকোনো ব্যক্তি সংক্রমণ ঘটবে। কারণ ওই ভাল্ব থেকে পরিস্রুত বাতাস যায় কিন্তু যে ব্যক্তি নিঃশ্বাস ফেলে সেই বাতাস বাইরে বেরোই অর্থাৎ বাতাসের মাধ্যমে যদি কোনো সংক্রমণ হয় তাহলে এটি যথেষ্ট বিপদজনক। তাই কেন্দ্র সরকারের নিয়ম অনুযায়ী হুর নির্দেশ এই মাক্স ব্যবহার করা বন্ধ নির্দেশ দিয়েছে।

করোনা ভাইরাসের শুরুর দিক থেকে এখনো পর্যন্ত ভাল্ব যুক্ত n-95 যে মাক্স গুলো রয়েছে সেই মাস্কগুলো যথেষ্ট কার্যকরী বলে বাজারে বিক্রি হচ্ছে। যেকোন মানুষ সাধারন মাস্ক বাদ দিয়ে সবাই কিনছে অত্যধিক দামের এই n-95 মাস্ক। কিন্তু এই মাস্কে কোন লাভ নেই। হু থেকে জানাচ্ছে এই মাস্কের ক্ষতি অনেক বেশি। তাই এই মাক্স না পড়াই ভালো। হু এরমতে জানানো হয়েছে এবং বেশ কয়েকটি মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন থেকে জানানো হয়েছে যে সমস্ত মাক্স কোন ছিদ্র নেই কিংবা কোন ছিপির মতো অংশ বসানো নেই শুধুমাত্র কাপড়ের, নিঃশ্বাস বাইরে বেরোবে না সেই সমস্ত মাক্স পড়া একান্ত বাধ্যতামূলক। সরকারের নিয়ম অনুযায়ী এই সমস্ত মাস্ক বাজারে এবার বন্ধ করা হবে। ভাল্ব যুক্ত যেকোনো মাস্কে ক্ষতি হতে পারে তাই সমস্ত বাজারে বন্ধের দাবি করেছে কেন্দ্র।

তবে প্রথম থেকে শুরু করে এখনো প্রচুর ব্যবসায়ীরা রয়েছে অল্প দামের নকল n-95 মাক্স বিক্রি করেছে। নিজেদের লাভের জন্য অধিক দামে বিক্রি করলেও তাতে লাভ পাবে না কোন ব্যক্তি। এই মাক্স ব্যবহার করছে যে সমস্ত ব্যবহারকারীরা তারা একবার পড়ার পর কিংবা দুবার পড়ার পর সেই বাড়িতে নিয়ে গিয়ে সাবান জল দিয়ে ধুয়ে কিংবা সেটির জলের মধ্যে ধুয়ে নিচ্ছে তারপর আবার ব্যবহার করছে। একবার যদি ভাল্ব যুক্ত মাস্ক ধোয়া হয় তাহলে আর তার কোন কাজ হয়না। তাই ভাল্ব বসানো অরিজিনাল যে মাস্ক গুলো তা জলে ধোয়ার পর আর কোন কাজ হবে না। কিন্তু তাতে সাধারণ মানুষ না জেনে তারা জলে ধুয়ে সেই মাক্স ব্যবহার করত।

সকল দেশবাসীর কাছে কেন্দ্রের দাবি এবারে বাড়ি তৈরি মাক্স ব্যবহার করুন। যে সমস্ত কাপড়ে মাক্স তৈরি করা যায় সেই রকম কাপড় দিয়ে বাড়িতে মাস্ক করে সেগুলো ব্যবহার করুন তাতে সুবিধা অনেক বেশি। শুধু সৌখিনতা বজায় রাখতে গিয়ে সংক্রমণ ছড়াবেন n-95 মাস্ক। মাক্স তৈরীর আগে কাপড় গুলো খুব ভালো করে কেঁচে নিন তারপর মাক্স তৈরি হয়ে গেলে কাপড় ঠিক গরম জলে ফোটান কিংবা একবার পড়ার পর সেই মাক্স বাড়ি নিয়ে এসে গরম জলে নুন দিয়ে ভাল করে ফোটান তারপর শুকনো হলে আবার পড়ুন। কিন্তু একই মাক্স বারবার ব্যবহার করবেন না। মাক্স বারবার গরম জলে কাচুন তাহলে সমস্ত জীবাণু নষ্ট হবে জানিয়েছে মেডিকেল দপ্তর থেকে। তাই বাজারে একেবারে এন-95 মাস্ক বন্ধ করার দাবিতে কেন্দ্র একেবারে তুঙ্গে এবং সমস্ত ব্যবসায়ীদের কাছে অনুরোধ করেছে এই মাক্স একেবারে বাজেয়াপ্ত করার।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন