অভিনেত্রী করোনা টীকার বদলে নিলেন পাউডার গোলা জল! এত বড় বিভ্রান্তি হয় কি করে দাবি সাংসদ মিমি চক্রবর্তির

0
mimi chakroborty vaccination blander
টিকাকরনে বিভ্রান্তি মিমি চক্রবর্তী

হাজার সংবাদ ডেস্ক: মিমি চক্রবর্তীর ভ্যাক্সিনেশন নিয়ে বিভ্রান্তি। সাংসদ মিমি চক্রবর্তীর ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে পাউডার গলা ও তার সাথে রয়েছে হাম ও বিসিজি টিকা কিন্তু কিভাবে এই বিভ্রান্তি কিভাবে এই ভুল হলো তা নিয়ে মিমি চক্রবর্তী নিজে ক্ষোভ জানিয়েছেন। এক সংবাদ মাধ্যমে তিনি এও বলেছেন যে ভ্যাকসিনেশন এত বিভ্রান্তি হয় কিভাবে এবং তার ভ্যাক্সিনেশন হওয়ার পর রিপোর্ট চাওয়াতেই রিপোর্ট আসেনি এবং তার সহকারীরা অনেক হাঁটাহাঁটির পরেও সেই রিপোর্ট আসেনি তার হাতে। সাথে সাথে তিনি ভ্যাকসিন নেওয়ার পর যখন জানতে পারেন যে ভ্যাকসিন এর মধ্যে করোনার ভ্যাকসিন তো দূরের কথা সেই জলের মধ্যে মেশানো ছিল পাউডারের গোলা তখন তিনি সাথে সাথে নিজের ভ্যাকসিনেশনের রিপোর্ট এবং সেই রিপোর্ট না আসাই সন্দেহ জনক ভাবে বিশেষজ্ঞদের কাছে তিনি ফরেনসিক রিপোর্ট এর জন্য দাবি করেছিলেন তবে সেই ফরেনসিক রিপোর্ট এসে পৌছাই। তবে ভয়ের কোনও কারন নেই। মেডিসিন চললেও তিনি সুস্ত আছেন।

বৃহস্পতিবার ভ্যাক্সিনেশন সেন্টারে যাওয়ার পর যখন তিনি ভ্যাকসিন নেন তখনও তিনি জানেন না যে তিনি করোনার ভ্যাকসিন আদৌ না নিয়ে তিনি নিচ্ছেন পাউডার গোলাজল। তাই ইনজেকশন এর মধ্যে এই পাউডার গোলাজল যে তার মত শরীরের মধ্যে পুস হয়েছে সেটি জানার সাথে সাথেই তিনি অনেক টেস্ট করেছেন তবে তিনি এখন অনেকটা সুস্থ আছেন। কিন্তু সে সেই ঘটনার জন্য তিনি দায়ী করেছেন সেখানকার কর্তৃপক্ষ নামে এবং তা ছাড়াও তিনি সেখানকার যিনি আছেন তার নামে তিনি এফআইআর দায়ের করেছেন যে কিনা বেশকিছুদিন আগে কমিশনার অফিসের বলে নিজের নাম কিনেছিলেন। তিনি এখন জেল হেফাজতে রয়েছেন ভুল তথ্য দেওয়ার জন্য। তবে তিনি এই ঘটনা নিয়ে ক্ষোভ নিন্দা করেছেন এবং এও বলেছেন এই ঘটনা যাতে আর না হয় তার ব্যবস্থা যেন খুব শীঘ্রই নেওয়া হয়। তার সাথে মিমি চক্রবর্তীর শারীরিক অসুস্থতা সৃষ্টি হতে পারতো তা নিয়েও বারবার লিখেছে সংবাদমাধ্যম এবং মিমি চক্রবর্তীও জানিয়েছে যে ভ্যাকসিন নিতে যাওয়ার পরে তার সন্দেহ হয় এবং ভ্যাকসিনের ইনজেকশন নেওয়ার পরে যখন তিনি জানতে পারেন যে সেই ভ্যাকসিন এর মধ্যে দেওয়া ছিল পাউডার এবং তখন তিনি অনেক বেশি ভয়ে আঁতকে উঠেছিলেন।

কারণ সার্বিকভাবে তিনি অসুস্থ হয়ে না পড়লেও পরে সমস্যা হতে পারে তাই ভেবে তিনি অনেকগুলো রিপোর্ট করেছিলেন তবে সেই রিপোর্ট যথাসম্ভব ভালোই এসেছে এবং তিনিও এখন ভালো আছেন তা নিয়ে কোনো অসুবিধা হতে পারে না বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা তবে তিনি সেই রিপোর্টের জন্য বারবার হেঁটেছিলেন এবং সেই রিপোর্ট আপডেট পাওয়ার জন্য অর্থাৎ তিনি যে ভ্যাকসিন নিয়েছেন সেই ভ্যাকসিনেশনের শংসাপত্র তিনি বহুবার চেয়েছেন তবে সেই শংসাপত্র আসেনি ভ্যাক্সিনেশন সেন্টার থেকে।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন