লক্ষ্মী পুজাকে কেন কোজাগরী লক্ষ্মী পুজা বলা হয় জানেন? কেন সবাই রাত জেগে ব্রত রাখেন মা লক্ষ্মীর জন্য

0
Meaning of kojagori Laxmi Puja
কোজাগরী লক্ষ্মী পুজা বলার কারন

হাজার সংবাদ ডেস্ক: দেবীপক্ষের শেষ পূর্ণিমা হল কোজাগরী পূর্ণিমা। আর এই পূর্ণিমার দিন কোজাগরী লক্ষ্মী পূজা করা হয় বলেই পূর্ণিমার নাম দেওয়া হয়েছে কোজাগরী পূর্ণিমা। এই পূর্ণিমাতে মূলত ভক্তদের এটাই জানার যে একে কোজাগরী পুজো বলা হয় কেন? কোজাগরী কথাটা এসেছে হিন্দু পুরাণ থেকে হিন্দু পুরাণে কোজাগরী কথার অর্থ হল কো-জাগর্তি অর্থাৎ “কে জেগে আছে রে”। এই কথাটার পরিপ্রেক্ষিতে বলতে গেলে বলতে হয় এই কথা যে কোজাগরী পূজার দিন মা লক্ষি স্বয়ং নাকি গৃহস্থ বাড়ি ঘুরে দেখেন কে জেগে আছে এবং কে কে তাকে অভ্যর্থনা করে পূজা করছে এবং ঘিয়ের প্রদীপ জ্বালাচ্ছে। তার উপরেই নাকি ধনসম্পত্তি বাড়ে এবং মা লক্ষ্মী কৃপা করেন তার ওপর। এই রকমই নির্দেশনা শোনা যায়।

হিন্দু পুরাণের কথা অনুযায়ী জাগর্তি অর্থাৎ মা লক্ষীর ব্রত রাখার পর সারা রাত জেগে মাকে আরাধনা করা অর্থাৎ ঘিয়ের প্রদীপ কিংবা পাশাখেলা এর মাধ্যমে রাতটা জেগে কাটানো। আর এই রাতে জেগে মায়ের আরাধনা করলে ধন সম্পত্তি সমৃদ্ধির ওপর বিরাজ করেন মা লক্ষ্মী। সাথে পুণ্যি অর্জন হয়। যে ব্রত রেখেছেন সে যদি রাত জাগেকোজাগরী লক্ষ্মী পুজোর দিন ভালো আবার অনেকেই আছে যারা ব্রত রাখতে পারেনা কিন্তু রাত জাগে তবে এই রাত জাগায়ে নাকি অনেক বেশি পুণ্যি আর সেই পুণ্যি এই কারণেই যে মা লক্ষ্মী গৃহস্থবাড়ির যখন এসে নজর রাখেন তখন এটি লক্ষ্য করেন যে তারা তার আরাধনায় ত্রুটি রাখেনি নিয়ম অনুযায়ী প্রত্যেক রাত জাগে। অর্থাৎ প্রত্যেক কোজাগরী রাতে নাকি ঘিয়ের প্রদীপ জ্বালানো প্রযোজ্য আর গৃহস্থ বাড়িতে প্রদীপ জ্বালালে সেখানে অনেক বেশি পুণ্য হয় শুধু তাই নয় এই ধনসম্পত্তির দেবীর পূজার আরাধনার জন্য রাত জাগা নিয়ম যেমন রয়েছে তার সাথে সাথে এটাও বলা হয় যে রাত জেগে পাশা খেলা। এই পাশা খেলার মধ্যে একটাই অর্থ ধনসম্পত্তি নিজের ভাগ্যে অবিরত করে রাখা আর আশীর্বাদ ও মা লক্ষ্মী সানিদ্ধে থাকা।

শুধু তাই নয় এই কোজাগরী লক্ষ্মীপুজোর পেছনে রয়েছে আরও অনেক কারণ। কোজাগরী লক্ষ্মীপুজোর সময় যদি কোন চোর কিংবা ডাকাত তারা যদি গৃহস্থ বাড়ি জেগে থাকা গৃহস্থদের কে চোখ এড়িয়ে যদি তার কার্যসিদ্ধি করতে পারে তাহলেও নাকি অনেক বড় ফল হয়। অনেক ভালো সুফল দাঁড়ায় তবে সেই কাজটি করতে পারা যথেষ্ট ভাগ্যের কারণ গৃহস্থ বাড়ি যখন জেগে থাকে সেই রাতেই যদি কেউ চুরি করতে পারে তাহলে তার ভাগ্যে অনেক ভাল ফল আসে এরকম বলা আছে হিন্দু পরানে। তবে কোজাগরী লক্ষ্মী পূজার মাহাত্ম্য রয়েছে হিন্দু পুরাণে। কারণ প্রথম থেকে এখনো পর্যন্ত মানুষের স্থায়ী ভাবে এই পুজো করে আসেন এবং এই কোজাগরী রাতে সবাই জেগে থাকে শুধু তাই নয় নিজেদেরকে ব্যস্ত রেখে রাত জাগার চেষ্টা করেন। তাতে নাকি অনেক বেশি পুণ্যি অর্জন হয়। আর পূর্ণিমার হলে ধনসম্পত্তির এবং মা লক্ষ্মীর কৃপা পরে তাদের ওপর। তাই কোজাগরী কথার অর্থ কে জাগে রে এই কথার মানে মা লক্ষ্মী প্রত্যেক বাড়ি বাড়ি ঘুরে দেখেন যে তারা রাত জেগে, নিষ্ঠা করে মায়ের আরাধনা করছেন। তার ওপরেই মা লক্ষ্মীর কৃপা পড়েন তার জন্যই আজ এই পুজোর নাম হয়েছে কোজাগরী লক্ষ্মী পূজা।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন