কষ্টে আছে প্রিয় বন্ধু, আবারো ফিরে পেতে চাই সুশান্ত সিংয়ের সাথে কাটান মুহূর্ত!

relation between susant sing and ankita
কষ্টে আছে বন্ধু সন্দিপ

হাজার সংবাদ ডেস্ক: দিনের পর দিন বাড়ছে জল্পনাও। প্রত্যেকদিন নতুন নতুন তথ্য বেরিয়ে আসছে তার মৃত্যু রহস্য নিয়ে। আগামীকাল মুম্বাই পুলিশ সূত্রের খবর অনুযায়ী রিয়ার বয়ানে জানিয়েছেন যে- রিয়া চক্রবর্তী এবং সুশান্ত সিং একসাথেই ছিলেন লকডাউন চলাকালীনও। বেশ কিছু ঝামেলা হয় রিয়া চক্রবর্তী সাথে, আর কয়েকদিন আগেই আলাদা হয়ে গিয়েছিলেন তাঁরা। একই ফ্ল্যাটে থাকতেন তাঁরা। তাঁরা বিয়ে করবেন বলে ঠিক করেছিলেন। তারপরে হঠাৎই ঝামেলার সৃষ্টি হয়েছিল সেই ঝামেলার জন্য আলাদা হতে হয়েছিল রিয়া সুশান্তকে। বয়ানে তিনি বলেছেন দুজনের যথেষ্ট ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল, এবং তারা দুজনে লিভইন করছিলেন। হঠাৎ এই ঝামেলা হওয়ায় বেরিয়ে আসেন রিয়া চক্রবর্তী। তাঁর ফোন এবং বেশ কিছু তথ্য ঘেঁটে জানা গিয়েছে তাঁদের কিছু ঘনিষ্ঠ ছবি এবং টেক্সট মেসেজ। তাদের বিয়ের কথা হচ্ছিল সুশান্তর বাড়িতে। রিয়া চক্রবর্তী জানিয়েছে যে, দিনের পর দিন তার ব্যবহার এতটাই পরিবর্তন হচ্ছিল যে তা নিয়ে বেশ কিছু ঝামেলা হয়েছিল এবং এছাড়া আরো কিছু ঝামেলার জন্য তাকে আলাদা হয়ে যেতে হয়েছে।

প্রমাণস্বরূপ রিয়া চক্রবর্তী পুলিশকে জানিয়েছে যে কিভাবে পরিবর্তন হয়েছিল তার ব্যবহারের। যদিও অবসাদের জন্য ওষুধের চলছিল, মানসিক চিকিৎসা চলছিল। সে জানিয়েছে যে আমি এবং সুশান্তের দিদি ওকে ওষুধ খাওয়ার জন্য বাধ্য করালেও ওষুধ খেতে চাইত না। ওষুধ না খাওয়ার জন্য ঝামেলা করতো আমাদের সাথে। বেশকিছু অবসাদের মধ্যে কাটাচ্ছিলেন সুশান্ত সিং। এবং তার মধ্যে বেশকিছু ছবি হাতছাড়া হয়। তবে কাজ ছিল না এমনটা বলা যায় না। আমার সাথেই দুটো ছবির কাজ শুরু করার নিয়ে কথা হয়েছিল। এই ছবিগুলোর কাজ করতে এক থেকে দেড় বছর সময় লেগে যেত। কিন্তু বেশ কিছু অবসাদে ভুগছিলেন তিনি আর তারপর এই মৃত্যু। তার মৃত্যু নিয়ে যথেষ্ট কষ্টের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে রিয়া চক্রবর্তী, জানিয়েছেন মুম্বাই পুলিশ এর কাছে।

তিনি আরো জানিয়েছেন যে দিন সকালবেলা সুশান্ত সাথে ওই দুর্ঘটনা ঘটে তার আগের দিন রাত্রে কথা হয়েছিল রিয়া চক্রবর্তীর সাথে। তাতেও তিনি কিছু বুঝতে পারেননি। একের পর এক মৃত্যু রহস্যের জট খুলতে না খুলতেই নতুন করে আরো এক কাহিনী বেরিয়ে আসছে। এর মধ্যেই সুশান্ত সিং এর ঘনিষ্ঠ বন্ধু সন্দীপ সিং টুইটারের মাধ্যমে একটি পোস্ট করেছিল। সেখানে বলা হয়েছিল যে সে খুব মিস করছে তাদের বন্ধুত্বটাকে। অঙ্কিতা এবং সুশান্তকে সাথে নিয়ে তাদের ছয় বছর কাটানো এই বন্ধুত্বের জীবন সে ভুলতে পারছেনা। তিনি জানিয়েছেন যে অঙ্কিতা ও সুশান্তের ভালোবাসার জীবন সে কখনো ভুলবে না। সে যথেষ্ট মিস করছে তার হারিয়ে যাওয়া বন্ধু এবং অঙ্কিতার জন্য। বারবার চাইছে যে পুরানো দিন যেন আবার ফিরে আসে। তিনি টুইটের মাধ্যমে জানিয়েছে যে চার থেকে পাঁচ বছরের রিলেশন যথেষ্ট ভালো রিলেশন ছিল। তার সাথে অঙ্কিতার বছর পাঁচেক আগে যখন ব্রেকআপ হয় তখন যথেষ্ট ভালো সম্পর্ক ছিল। অঙ্কিতা কখনোই সুশান্তকে কষ্ট দিতে চাইনি। কিন্তু সুশান্ত নিজে থেকে সরে গেছে অঙ্কিতার জীবন থেকে। যে ফ্ল্যাটে থাকতাম আমরা অর্থাৎ আমি সুশান্ত এবং অঙ্কিতা, সেই লোখান্ডের ফ্ল্যাটে আজও সুশান্ত রাজপুত সিং এর নাম লেখা আছে ফ্ল্যাটের নেমপ্লেটে।


মা মারা যাবার পরে সুশান্ত সিং কোথায় যেন শান্তির আশ্রয় খুঁজেছিল অঙ্কিতার কাছে। আর অঙ্কিতা পাশে থেকে চেষ্টা করেছিল তাঁর সমস্ত অবসাদ কাটানোর। ভালোবাসা, স্নেহ, মায়া-মমতা দিয়েই তার অবসাদ কাটানোর। সে আরো জানিয়েছে যে কত না ভালো দিন ছিল সেই সময়টা আমাদের, একসাথে রান্নাবান্না করা একসাথে খাওয়া-দাওয়া কিছু পছন্দের খাবার তাকে না দিলে বাচ্চাদের মত আচারন করত সুশান্ত। সেই মুহূর্তগুলো সে কখনোই ভুলতে পারবেনা।

সন্দীপ সিং টুইটারে পোস্ট করেছেন যে অঙ্কিতা তুমি সুশান্তের জীবন থেকে চলে যাওয়ার পরেও তার সমস্ত কাজে ভালো চেয়েছো শান্তি চেয়েছিলে দূর থেকেও চেয়েছিল সে ভালো থাকুক। তার সমস্ত কাজে তুমি খুশি হয়েছো। তার সাথে আরো বেশ কিছু মুহূর্ত শেয়ার করেছেন সন্দীপ সিংহ তিনি জানিয়েছেন আচ্ছা অঙ্কিতা মনে আছে সেই দিনটার কথা যে দিনে আমার মা মাটন কারি করে পাঠাতো আর পাগলামো করত ওকে না দিলে। হোলির পাগলামো, একসাথে রান্নাবান্না করা খাওয়া-দাওয়া করা ডেটিংয়ে বেরোনো সবকিছু খুব কষ্ট দিচ্ছে। আমি আর পারছিনা এই সময়টা মেনে নিতে ফিরে যেতে চাই আবার সেই পুরানো জীবনে। তিনজনে একসাথে বাঁচতে চায়।

“পবিত্র রিস্তা” সিরিয়ালে কাজ করেছিল অঙ্কিতা ও সুশান্ত। তখনই তাদের সিরিয়াল চলাকালীন প্রেম শুরু হয়। তারপর লিভইন করছিলেন তারা। সাড়ে পাঁচ থেকে ছয় বছরের সম্পর্ক বেশ ভালই কাটছিল। তার জীবন থেকে বেরিয়ে আসায় কিন্তু অঙ্কিতা অনেক কষ্ট পেয়েছিল। তার মধ্যে বেশ কিছু ছবি এবং টুইট করেছিল যে এই সম্পর্ক ভাঙ্গার মূল কারণ ছিল সুশান্তের। তিনি আজও সুশান্তকে অনেক ভালোবাসে এবং দূর থেকে তার মঙ্গল কামনাই করেন। এই পবিত্র রিস্তা সিরিয়াল জুটি হয়ে থাকতে থাকতে তারা চেয়েছিল যে আস্তে আস্তে নিজেদের জীবন তৈরি করবে কিন্তু হঠাৎ বেরিয়ে আসে সেই রিলেশন থেকে সুশান্ত। আর তার বছর চারেক পরে এই বড় দুর্ঘটনা।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন