আরও অনেক বেশি পরিষেবা দেবে মেট্রো রেল! সকাল থেকে ১৮ টি ট্রেন বাড়ানো হয়েছে

0
Increasing the metro rail service
মেট্রো রেল

হাজার সংবাদ ডেস্ক: সোমবার থেকে অর্থাৎ আজ সকাল থেকে সমস্ত মেট্রো রেল বাড়ানোর কথা জানানো হয়েছে। সকাল এবং বিকেল অর্থাৎ অফিস টাইম এবং অফিস থেকে ফেরার টাইম গুলোতে একটু বেশি পরিষেবা দেওয়া হতো। সেই টাইমে এবারে অনেক বেশি ট্রেন রাখার কথা বলা হয়েছে। মেট্রোর ব্যবস্থা শুধুমাত্র অফিস টাইম অফিস থেকে ফেরার টাইম নয়। এবার মেট্রো সারাদিন চলবে এবং পরিষেবা বাড়ানো হচ্ছে অনেক বেশি। বিশেষত যারা ই-পাস পরিষেবা নিতে পারছে না তাদের জন্য কোন পরিষেবা দেওয়া হবে। তবে তা এখন সম্ভব নয়। যাদের কাছে এখন এই রকম কোনো পরিস্থিতি নেই তারা এই মুহূর্তে স্মার্ট কার্ড ব্যবহার করতে পারে বলে জানিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ।

আগের তুলনায় অনেক বেশি পরিমাণ ট্রেন বাড়ানো হয়েছে। শুধু তাই নয় এখন প্রায় ১৮ টি টেন বাড়ানো হয়েছে। আগে ট্রেন চলত ১৯০ টি আর এখন ১৮ টি বাড়িয়ে তার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০৮ টি। আর আপ এবং ডাউনে ১০২ করে ট্রেন চলবে এবার। এছাড়াও দমদম এবং কবি সুভাষ থেকে রাতে অর্থাৎ যে ট্রেনটি ছাড়বে ট্রেন চলবে ৯.২৫ মিনিটে টা জানিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ। এইরকম নিয়ম অনুযায়ী যদি একের পর এক পরিস্থিতির শিথিলতা ঠিকঠাক বজায় থাকে তাহলে এক থেকে দু মাসের মধ্যে অবস্থা আগের মত হবে বলে মনে করছেন রেল অধিকারীরা। তারা জানিয়েছে যে পরিষেবা আগের থেকে অনেক বেশী শিথিলতা দেওয়া হচ্ছে তার থেকেও বড় কথা করো না পরিস্থিতি যদি একের পর এক ঠান্ডা হয়ে যায় তাহলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে বেশিদিন সময় লাগবে না। বিশেষ করে যখন থেকে লোকাল ট্রেন চলছে। ওপর চাপ কমেছে অনেক বেশী। তবে শীতের জন্য আবারো একটু চাপ বাড়তে পারে বলে মনে করছে তারা। তার জন্য সাত মিনিট অন্তর একটি করে রাখা হয়েছে আগের যা সময় ছিল পাঁচ মিনিট থেকে তিন মিনিট তবে এখন অনেক বেশি কমিয়ে আনা হয়েছে যাতে সাধারণ মানুষের অনেক বেশি সুবিধা হয়।

সাধারণত মেট্রোরেলের পরিষেবা মানুষ অনেক বেশি গ্রহণ করতে চাই কিন্তু এই পরিস্থিতিতে যেহেতু লোকাল ট্রেন চলছে এবং মানুষের আর্থিক অবস্থার দিকে তাকিয়েই পরিসেবা গ্রহণ করাও অনেক বেশি অসুবিধার হয়ে দাঁড়াচ্ছে। তাই পরিষেবাতে অনেক বেশি শিথিলতা দেওয়া হয়েছে এখন। আগে ১৫ বছরের নিচে এবং মেয়েদের জন্য এ-পাস পরিসেবা গ্রহণ বাধ্যতামূলক ছিল না। তবে পূর্ণবয়স্ক এবং প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ থেকে শুরু করে ৫৯ বছর মানুষদের জন্য প্রয়োজন হতো পরিষেবা সেখানেও এখন অনেক বেশি শিথিলতা দেওয়া হয়েছে। এই পরিষেবা যদি না হয়ে থাকে তাহলে স্মার্ট কার্ড পরিষেবা নিয়ে তারা এখন যাতায়াত করতে পারে। তাই মেট্রোরেলের অনেক বেশি কাজে দিয়েছে এবং মেট্রো অধিকারী জানিয়েছে যে একমাস পরে আবারও স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরবে মেট্রোরেলের পরিষেবা। কারণ এখনও পর্যন্ত যদি আস্তে আস্তে ট্রেন পরিষেবা বাড়ানো হয় এবং মানুষ যাতায়াত খুব স্বাভাবিকভাবে গ্রহণ করতে পারে তাহলে এই করোনা পরিস্থিতি এড়িয়ে যেতে বেশি সময় লাগবে না মানুষের।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন