ভ্যাকসিন চেনার উপায় বলে দিল কেন্দ্র! আপনার নেওয়া ভ্যাকসিন ভুয়ো ছিল কিনা

0
identify the fake vaccine
আপনি ভুয়ো ভ্যাকসিন নেননি তো?

হাজার সংবাদ ডেস্ক: কিছু দেশে ভ্যাকসিন নিয়ে জালিয়াতি করছে কিছু মানুষ আর তার মধ্যে ভারতে তার বিকল্প নেই। ভুয়ো ভ্যাকসিন নিয়ে বহু বার বিপত্তি হওয়ার পর সামাল দেওয়া যাচ্ছে না তাই এবার কেন্দ্র থেকে সাবধান বার্তা সাধারন কে। সরকারিভাবে স্বীকৃতি পাওয়া ভ্যাকসিনের নাম উল্লেখ করে সে জায়গা দিচ্ছে অন্যরকম ভুয়ো ভ্যাকসিন। যেটা মানুষের শরীরে কোনো রকম ভাবে কাজ করছে না। তাই কেন্দ্র পরামর্শ দিয়েছে কিভাবে এই ভুল ভ্যাকসিন চিনবে না। এই ভ্যাকসিন চেনার উপায় বলে দিয়েছে কেন্দ্র। ঠিকভাবে যদি লক্ষ্য করা যায় তাহলে খুব সহজেই সরকারি ভাবে স্বীকৃত পাওয়া ভ্যাকসিন চিনে যাবেন।

কোভিশিল্ড, ভ্যাকসিন, ও স্পুটনিক’এই তিন রকমের ভ্যাকসিন মানুষের শরীরে প্রয়োগ করা হচ্ছে ভারতে। কভিশীল্ড প্রতিষেধক তৈরি করেছে এসআইআই সংস্থা। তাই এই প্রতিষেধকের গায় এই এসআইআই লেখাটা থাকে। ভালো করে দেখে নিতে হবে এই সংস্থার নামের শর্ট ফর্ম টা লেখা আছে কিনা। সরকারিভাবে যেসব ওষুধ মানুষের শরীরে ব্যবহার করা হয় তার ওপরে সিজিএস নট ফর সেল বলে লেখা থাকে তাই এই ভ্যাকসিন এর গায়ে এটা লেখা আছে এটা ভালো করে যাচাই করে নিতে হবে। তারপর এই এসআইআই লেখাটা শিশিরের গায়ে গারো সবুজ রঙের উপরে লেখা থাকে। তবে এই এসআইআই লেখা টি নির্দিষ্ট জায়গায় লেখা আছে কিনা কিছু ব্যক্তি বুঝতে পারবে বিশেষ করে যারা এই ভ্যাকসিন মানুষের শরীরে প্রয়োগ করছে এই লেখাটির নির্দিষ্ট একটা জায়গায় লেখা থাকে। সেই নির্দিষ্ট জায়গা ঠিকভাবে দেখে নিতে হবে। সেই লেভেলের সবুজ রঙের উপর একটি সাদা কালি দিয়ে লেখা হয়েছে। যাতে এই লেখাটির ভালোভাবে দেখা বা পরা যায়। ভ্যাকসিন কি আসল কি নকল তা একমাত্র বুঝতে পারবে যারা এই ভ্যাকসিন টা নিয়ে সব সময় নাড়াচাড়া করছে এই ভ্যাকসিনের যারা মানুষের শরীরের প্রয়োগ করছে তাই এটা ভালোভাবে ধরতে পারি না। অন্য কোন ব্যক্তি হঠাৎ করে এটা বুঝতে পারা কঠিন হয়ে দাঁড়ায়।

কোভাক্সিনের ক্ষেত্রে একটু অন্যরকম ভাবে লেভেল তৈরি করা আছে যেটা কেউ খালি চোখে দেখতে পায়না। অতিবেগুনি রশ্মি ছাড়া এই ভ্যাকসিন এর গায়ে ডিএনএর চিন্ন দিয়ে তৈরি করা আছে। কমিশনের উপর সব রকম লেখা বা লেবেল গুলো হলোগ্রাফিক মাধ্যমে কাজ করা হয়েছে। এই ভ্যাকসিন এর নাম টাও লেখা থাকে খুব ছোট ছোট করে যা হঠাৎ করে কারো চোখে পড়বে না।

তাই সবার আগে আপনাকে চিনতে হবে আপনি কি ভ্যাকসিন নিচ্ছেন। আর সেতা বইধ কিনা। যদি বৈধ হয় তাহলে চিনে নিন আর না হলে অবশ্যই আপনি বড় কোনও স্টেপ নিন যাতে কেউ এই বেনামি পপ্রতিষেধক না দিতে পারে তার সাহস জেন না পাই কেউ।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন