শীতে শরীর ভালো রাখুন খুব সহজে! আপনার শরীর সুস্থ রাখুন এবং শীতে আনন্দ করুন

0
How to treat you body in winter season
শীতে আপনার শরীর ভালো রাখুন

হাজার সংবাদ ডেস্ক: শীতের সময় মানুষ সাধারণত ডিহাইড্রেশনে ভোগে। এছাড়াও শুষ্কতায়। তাই মানুষের একটাই লক্ষ্য শীতের মধ্যে মানুষের শরীর শুষ্কতা এবং ঠান্ডা লাগা ছাড়াও বিভিন্ন রকম সমস্যা থেকে থাকে এর জন্যই শীতকালে আপনাদের যেগুলি করণীয়। সাধারণত আপনার শরীর এবং ঠান্ডা লাগা কে রোধ করতে হলে যেগুলো করণীয় সেগুলি হল সকালবেলা উঠে আপনি কাঁচা হলুদ এবং আখের গুড় খান তাহলে আপনার সারা শীতে ঠান্ডা লাগার প্রবণতা কমবে সর্দি-কাশির প্রবণতা কমবে। কিংবা আপনি প্রত্যেক দিন সকাল বেলা খালি পেটে মধু খেতে পারেন মধু শরীরকে অনেক বেশি সক্রিয় রাখে তাই মধু আপনার শরীরের জন্য শীতকালে খুব ভালো একটি উপাদান। যা আপনার শরীরকে অনেক বেশি ষ্ট্রং রাখবে।

এছাড়াও আপনি প্রত্যহ সকালে গরম জল লেবু সাথে এক চামচ মধু খান তাতে আপনার ওয়েট যেমন ঠিক থাকবে তার সাথে আপনার শরীরের উজ্জ্বলভাবে ঠিকঠাক থাকবে। আপনি শীতকালে নিজের শরীরকে বাঁচাতে গিয়ে এটা ভাববেন না যে আপনি অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। আপনি আপনার শীতকালে শরীর ভালো রাখতে গেলে আপনার দরকার ফল খাওয়া এবং ঠিকঠাক খাওয়া-দাওয়া করা তার সাথে সাথে নিজের শরীরের যত্ন নিন। আপনি শীতকালে টক জাতীয় জিনিস বেশি খান বিশেষত আপনি শীতকালে লেবুর ওপর বেশি জোর দিন যেমন কমলালেবু। কমলালেবু শীতের পক্ষে খুব ভালো একটি ফল এবং এটি শীতকালে পাওয়া যায় তাই শীতকালে কমলালেবু খাওয়ার যথেষ্ট ভালো একটি উপকার রয়েছে।

আপনার স্কিন যেমন শীতকালে কমলালেবু খাওয়াই ভালো থাকবে একই রকম ভাবে আপনার লিভারটা কে ভালো রাখবে তা থেকে বড় কথা আপনার চুল পড়া কে একেবারে বন্ধ করে দেবে সঙ্গে পাতিলেবু। খুব ভালো কাজ দেয় এছাড়াও শীতকালে আপনি অত্যধিক পরিমাণে শাকসবজি খেতে পারেন কারণ শীতকালে শাকসবজি আপনার ঘরের সব সময় থাকবে এবং শীতকালের সবথেকে বড় সুবিধা হল এই শাক সবজি পাওয়া যায়। তাই শীতকালে আপনি শাকসবজি খান শাকসবজি আপনার অনেক বেশি উপকার দেবে ঠিক যেমন ভালো তেমনি আপনিও সুস্থ থাকবেন যত বেশি। শাকসবজি খাবেন তার সাথে সাথে ধরুন আপনি শীতকালে আমলকি খেতে পারেন আমলকি খুব ভালো কাজ দেয়।

এই শীতে বিশেষত আমলকি আপনি ভাতের মধ্যে সিদ্ধ করে নিন কিংবা আমলকি কাঁচা খান তাহলে আপনার শীতকালে যে এসিডের সমস্যা থাকে বা অনেকে বাংলা ভাষায় যেটাকে পেট গরম বলে থাকে সেগুলো অনেকটাই কমে যাবে আর শীতকালে আপনার অনেক সমস্যা হয় কারণ আমরা সাধারণত শীতকালে গায়ের উপরে চাদর এবং তা না যেমনটা জড়িয়ে থাকি তার জন্য শরীরের তাপমাত্রা সঙ্গে অনেকটাই মিল করাতে সমস্যা হয় আর তখনই আমাদের পেটের সমস্যা অনেক বাড়ে আর তার জন্যই ঠিক রাখতে গেলে আপনার দরকার বেশ কিছু খাওয়া-দাওয়া এবং নিয়মকানুন মেনে চলা।

ঠিক সেই জন্যই আপনি সমস্ত টা ঠিক রাখার জন্য করবেন তার সাথে অত্যধিক পরিমাণে জল খাবেন এবং সাথে আমলকিতে ও খাবেন তাতে আপনার ঠিক রাখবে এবং জল আপনার শরীরকে স্ট্রং রাখবে। আপনার শরীরের সমস্ত ক্লান্তি সবকিছু দূর করতে পারে এই জল আর শীতকালে ঘুমোতে যাওয়ার আগে আপনার যেটা করনীয় সেটা হল পায়ের তলায় একটু সরষের তেল মেখে শোবেন যদি আপনার ঠান্ডা লাগার প্রবণতা থাকে আর যদি তা না থাকে তাহলে দরকার নেই তবে ঠান্ডা লাগার প্রবণতা থাকলে এক থেকে দেড় মাস অর্থাৎ এই সময়টা থাকবে আপনি প্রত্যহ যদি সরষের তেল মেখে ঘুমান তাহলে ঠান্ডা আপনাকে স্পর্শ করতে পারবে না। হাতের তালু এবং পায়ের তালুতে সরষের তেল মাখার অনেক ভালো গুণ রয়েছে তাছাড়াও অনেকে রয়েছে স্কিন ভালো রাখার চেষ্টা করে শীতকালে আপনি শীতকালে স্কিন ভালো রাখার জন্য অনেক উপকরণ ব্যবহার করতে পারেন কিন্তু সবার আগে দরকার আপনার শরীরকে ঠিক রাখা আর শরীরকে ঠিক রাখতে গেলে আপনার দরকার সবার আগে খাওয়া-দাওয়ার উপর নজর দেওয়া।

কারণ পেট ভালো না থাকলে আপনার মুখেই সেই ছাপ পড়বে আর শীতকালে আপনার স্ক্রিন এবং শরীরকে ঝলমলে রাখতে হলে আপনাকে খেতে হবে পুষ্টিকর খাবার। তাই আপনার খাবারের দিকে একটু বেশি নজর দিন এবং আপনি অনেক বেশি স্বাস্থ্যবান হয়ে উঠে আপনার শরীর তার প্রমাণ দেবে সেখানে আপনাকে আলাদাভাবে কোন রকম ব্যবস্থা নিতে হবে না তাই পেটকে ভালো রাখতে হবে এবং পেটকে ভালো রাখতে গেলে ভালো খাবার-দাবার খেতে হবে। তার সাথে আপনার দরকার আপনার চুল যদি পড়ে শীতকালে অনেকের অনেক বেশি চুল পড়ে তো সে ক্ষেত্রে আপনি টক জাতীয় খাবার বেশি খান এবং মাথার মধ্যে চুল পড়া বেশি হলে আপনি খুশকির জন্য ট্রিটমেন্ট করাতে পারেন। কারণ শীতকালে প্রত্যেকের মাথায় ভীষণ পরিমাণে খুশি হয় আর এই সমস্যাটা অনেক বেশি বাড়ে আর তার জন্যই বলব সবাই যদি পারেন শীতকালে স্নানের আগে লেবু মাখুন আপনার মাথার খুশকি প্রচুর পরিমাণে কমে যাবে এবং খুশি থাকবে না বললেই চলে। সেই জন্য আপনার লেখাটাও খুব জরুরী। একটা কাজ যদি আপনার খুশকির সমস্যা থেকে থাকে তাহলে দেখবেন আপনার চুল পড়াটাও কমেছে সাথে আপনার খুশিতে অনেক কমে গেছে।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন