অভিনেতার মৃত্যুর সাথে জরিয়া রয়েছে ঘনিষ্ঠ বন্ধু সন্দীপ সিং ও রিয়া! কেন করেছেন তারা এই কাজ?

0
Friend Sandeep Singh involved in Sushant Singh's suicide case
সন্দীপ সিং

হাজার সংবাদ ডেস্ক: সুশান্ত সিং এর মৃত্যু আদৌ কি আত্মহত্যা নাকি সেটি খুন? তা নিয়ে বহুবার ভ্রান্তি ঘটেছে মানুষের। কিন্তু অভিযুক্তদের মধ্যে নাম ছিল শুধুমাত্র রিয়া চক্রবর্তী আর মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর ছেলে আদিত্য ঠাকরের নাম। কিন্তু এবার বিভিন্ন রকম ভাবে প্রযোজক সংস্থার নাম হয়তো নেপোটিজম এর জন্য আসেনি কিন্তু তার সাথেও জড়িয়ে রয়েছে আরও একজন প্রযোজকের নাম সন্দীপ সিং। আদপে তিনি প্রযোজক হয়তো কিন্তু সুসান্ত সিং এর কাছে ছিলেন নাকি খুব ঘনিষ্ঠ একজন বন্ধু। কিন্তু এই ঘনিষ্ঠ বন্ধু কিভাবে মৃত্যুর সঙ্গে জড়িয়ে পড়লেন নাকি তিনি আদৌ এই মৃত্যুর সমস্ত ঘটনা নিজে হাতেই ঘটিয়েছেন। তা না হলে তার করা প্রত্যেকটা কাজ কেন সামনে আসছে।

সুসান্ত সিং এর মৃত্যু হয়েছিল জুনের 14 তারিখে জুন। মাসের 14 তারিখ ছিল খুব স্মরণীয় একটি দিন যেদিন সুসান্ত সিং কে হারিয়ে গোটা দেশ শোকের ছায়া পড়ে ছিল। 14 তারিখে বডি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় কিন্তু মৃত ঘোষণা করার পর সুসান্ত সিং কে যখন ময়না তদন্তে পাঠানো হয় 15 ই জুন। ঠিক তখনই সব কাজে দায়িত্ব নিয়ে করেছিলেন এই সন্দীপ সিং এ ছাড়াও সুসান্ত সিং এর আধার কার্ড এবং সমস্ত আইডেন্টিটি প্রুফ দিয়ে তিনি নিজেই সব জায়গায় সাইন করেছিলেন। সন্দ্বীপকে সেই কাজ করেছেন আদৌ কি তিনি তার শুভাকাঙ্ক্ষী হিসেবে কাজ করেছেন নাকি তার পেছনে জড়িয়ে আছে অন্য কোন রহস্য। কারন সুসান সিং এর মৃত্যুর পর থেকে তার দিদি আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করাই নি যদি সুসান্ত সিং এর এই বন্ধু সেই মর্মান্তিক ঘটনায় শোকাহত হয়ে থাকে তাহলে সুশান্ত সিং এর দিদি আসার আগে তার বডি কেন খোলা হয়েছিল গলায় ফাঁস অবস্থা থেকে। কেন তার বডি তার আগে নামানো হয়েছিল বিছানাতে। তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল বারবার সন্দীপ সিং প্রথম থেকেই ছিলেন সুসান্ত সিং এর বাড়িতে যেদিন তিনি মারা যান।

সুসান্ত সিং এর বডি যখন ময়না তদন্তে পাঠানো হচ্ছিল ঠিক তখনই তিনি সেনা অধিকারীকে সুরজিত জানিয়েছিলেন সুসান্ত সিং এর গার্লফ্রেন্ড আসবেন তার সাথে একটু দেখা করানো দরকার তার গার্লফ্রেন্ড লাস্ট বারের মতো সুশান্তকে দেখতে চাই। এই বলে দাবী রেখেছিল সন্দীপ সিং এবং সন্দীপ সেই কথাই সুরজিৎ সিং জানিয়েছে যে ঠিক আছে কোন অসুবিধা নেই। আমি তাকে দেখাতে পারি তো তার কথায় সুরজিৎ সিং এর কথায় তিনি বলেছেন রীতিমতো রিয়া চক্রবর্তী তাকে দেখতে এসেছিল এবং রিয়া চক্রবর্তী তাকে দেখার সাথে সাথে বলেছিল “সরি বাবু” এই কথাটি তিনি কেন বলেছেন রিয়া। সুরজিৎ জানিয়েছেন এই কথার মন্তব্যসমূহ দেখে আমার মনে হয়েছিল এর মধ্যে জড়িয়ে আছে অন্য কোন ঘটনা। কিন্তু এর মধ্যে এসব হাত রয়েছে সন্দীপ সিংহ রিয়া চক্রবর্তী কিন্তু সেভাবে এদের নাম সামনে আসেনি তাই আমিও মুখ খুলি নি। কিন্তু আমার মনে হয় সন্দীপ সিং এবং রিয়া চক্রবর্তী যথেষ্টভাবে এর সাথে জড়িয়ে রয়েছে।

তবে এই দেশের প্রথম থেকেই যে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে সবাই সন্দেহ ছিল তা এখন হয়তো কিছুটা সত্যি বলে প্রমাণ হচ্ছে। জাতীয় গোয়েন্দা দল তার জন্য পাঁচটা ভাগে ভাগ করেছে তার মধ্যে বসানো হবে এই পাঁচটা দলের একটা বৈঠক। সেখানেই ঠিক করা হবে আবার ময়নাতদন্তের রিপোর্ট নিয়ে। সেই ময়নাতদন্ত করেছিলেন যে ডাক্তাররা তাদেরকেও ডাকা হয়েছে এই বৈঠকের সেখানে কথাবাত্রা আবারও করা হবে পুনরায় পুরানো বৃত্তান্ত নিয়ে।

তবে এত সব কিছুর মধ্যে যখন রিয়া চক্রবর্তী এসেছেন তার মধ্যেও এখন জড়িয়ে রয়েছে আরও এক অভিযুক্ত সন্দীপ সিং তিনি আদবে সুশান্তের বন্ধু ঠিকই কিন্তু তার পরিবার আদৌ জানতোনা সুসান্ত সিং এর এত ঘনিষ্ঠ একজন বন্ধু ছিল সন্দীপ সিং। অভিনেতা মারা যাবার বেশ কিছুদিনের মধ্যে টুইট করে জানিয়েছিলেন তিনি যথেষ্ট কষ্ট রয়েছেন সেদিনটা আবারো ফিরে পেতে চায় কিন্তু হঠাৎ করে তার নামেই বদনাম কেন? তার কারণ সুসান্ত সিং এর মৃত্যুর এক বছর আগে থেকে সন্দ্বীপ সিংয়ের সঙ্গে সুশান্ত সিং এর কোন যোগাযোগ ছিল না। যদি খুব ঘনিষ্ঠ বন্ধু হয়ে থাকে তাহলে এক বছর কেন যোগাযোগ ছিল না কেন বা তিনি যেদিন মারা যায় সবার আগে সেখানে পৌঁছেছিলেন। বাড়ির লোক যেখানে এসে পৌঁছায়নি সেখানে বন্ধু এত দূর থেকে কিভাবে পৌঁছেছিলেন বহু বার প্রশ্ন উঠেছে এবং বডি নামানোর দায়ে তাকে কে দিয়েছে? তারা ছাড়াও হসপিটালে নিয়ে যাওয়ার পর তাকে বারবার পুলিশি ব্যবস্থা থেকে সুসান্ত সিং এর সমস্ত সরকারি ব্যবস্থায় সাইন করানোর দায়িত্ব নিয়েছিলেন সন্দীপ সিং কেন তিনি সব দায়িত্ব নিয়েছিলেন?

তাহলে কি সুসান্ত সিং এর সমস্ত সরকারি ডকুমেন্টস এবং আইডেন্টিফিকেশন সমস্ত কিছু তাঁর কাছে ছিল কেন? তার সাথে আরও কিছু সরিয়েছে সেই ঘর থেকে তা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। যদিও সিবিআই এ নিয়ে তদন্ত চালাচ্ছে খুব কঠোর ভাবে তবে তার সামনে আসা খুব দরকার কারণ ভালো মুখের আড়ালে যে এত কিছু লুকিয়ে আছে তা বোঝা যায়নি। কারণ সন্দীপ সিং কে নিয়ে সবার মনে অন্য রকম একটা ধারণা ছিল কিন্তু একের পর এক নতুন নতুন নিউজ চ্যানেলের সামনে আসা ভিডিও যখন সবাই দেখেছে তার উপরে বিশ্বাস চটেছে। তিনি সেনা সুরজিৎ সিংহ জানিয়েছেন যে মুম্বাই পুলিশ সুসান্ত সিং এর মৃত্যুর পরে সন্দীপ সিং এর কথা অনুযায়ী চলেছে। সন্দীপ সিং যা বলেছিলেন তার উপরে মুম্বাই পুলিশ কাজ করেছে আর এদিকে নিউজ নিউজ চ্যানেল থেকে জানানো হয়েছে সুসান্ত সিং এর বডি যখন হসপিটাল থেকে নিয়ে যাওয়া হয় সৎকারের জন্য ঠিক সেইসময় অভিনেতার এর বন্ধু মুম্বাই পুলিশ কে থামস আপ দেখিয়েছে। এর মানে কি তাহলে কি সত্যিই তিনি সব ঘটনা ঘটিয়েছেন আর রিয়া চক্রবর্তীর সরি বলার কারণ কি? একজন মৃত মানুষের সামনে দাঁড়িয়ে তিনি বলেছেন একথা। তাই সুরজিৎ সিংহ বলেছেন এর মধ্যে অবশ্যই জড়িয়ে রয়েছে রিয়া চক্রবর্তী তথা সন্দীপ সিং।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন