আজকের করোনা ভাইরাসে দৈনন্দিন হার বাড়ায় চিন্তায় মানুষ! পুজো এখন কয়েকদিন বাকি তার আগেই হঠাৎ করে ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমন

0
easily increase the corona virus after puja festival
Corona virus

হাজার সংবাদ ডেস্ক: আর কয়েকদিন পরেই পুজো। ক্যালেন্ডারের দিন গুনছে মানুষ কিন্তু কতটা আনন্দ পাবে তার থেকেও বড় এই আনন্দের পর কতটা খেসারত দিতে হবে সেই আনন্দে, তা কেউ ভাবছে না। যেখানে একেবারেই স্কেল নেমে এসেছিল করোনা সংক্রমনের অর্থাৎ যেখানে ৯০ হাজার ছিল সেই জায়গা থেকে যখন ৫৫ হাজার ৫০ হাজার এ নেমে এলো দৈনন্দিন করনা ভাইরাসের সংক্রমণের হার সেখানে হঠাৎ করে আবারো বাড়তে শুরু করেছে করণা সংক্রমণ। সেখানে পুজো কোথায় পূজো তে এখন অনেক দেরি আর তার আগেই করণা সংক্রমণ আবার ঊর্ধ্বমুখী। আর রাজ্যে পুজো নিয়ে দুম দুমা কান্ড। প্রত্যেক পুজোতে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে কমিটির আর্থিক সাহায্য রাজ্য থেকে তার জন্যই পুজো করার ইচ্ছে না থাকলেও টাকা পাওয়ার ইচ্ছেই করছে অনেকেই পুজা করছে এবং সেই পুজো অবশ্যই সাধারণ মানুষ দেখতে আসবে আর সেই পুজো দেখতে এসে সংক্রমণ ছড়াবে। এটা তো নিশ্চিত পুজোর পর যে সংক্রমণ ছড়াবে তা নিয়ে বিশেষজ্ঞরাও ভিন্নমত পোষন করেছিলো। তারা জানিয়েছিল যে পুজোর পর সংক্রমণ বাড়বে তাই পুজোর না হওয়া অনেক ভালো।

তার প্রমাণ হাতে নাতে দু-একদিনের মধ্যে করোনা সংক্রমনের হার বাড়তে থাকল। ঊর্ধ্বমুখী হয়ে আবার বাড়ছে তবে যেখানে আগে ভারতে সারাদিনে 90000 ছিল ঊর্ধ্বমুখী পুজোর পরে প্রত্যেকদিন এক লাখ কুড়ি থেকে ত্রিশ হাজারের থাকবে বলে মনে করছে অনেক বিশেষজ্ঞরা। তারা বলছে করণা সংক্রমণে হার্ড ইমিউনিটি তৈরি তটা সবথেকে বড় বিষয় কিন্তু কতটা হার্ড ইমিউনিটি তৈরি হবে বরং সংক্রমণ আরো বাড়বে তার থেকেও বড় কথা করোনার প্রকোপ অনেক বেশি ভয়াবহ হয়েছে। আর ভারতের জন্য হয়তো করণা সংক্রমণে মানুষের প্রাণ কেড়েছে কম কিন্তু সংক্রমণ বেড়েছে বেশি।

কিন্তু তাই বলে এমন নয় সংক্রম বারার ব্যবস্থা নিজেরাই করা বরং কমার ব্যবস্থা করা উচিত। যত বাড়বে তার ভাইরাসের ইমিউনিটি পাওয়ার বাড়বে। তখন মানুষের কাছে হার মানতে পারবে না বরং মানুষকেই হার মানতে হবে করোনা ভাইরাসের কাছে। তাই পুজোর না হওয়াটা অনেক ভালো বিভিন্ন মহল থেকে মানুষ এবং জনস্বার্থের জন্য জানানো হয়েছে। পুজো হলেও আপনারা ভার্চুয়াল পুজো তে যোগদান করুন অনেক বেশি। প্যান্ডেল প্রত্যেকটা মানুষের যাওয়ার থেকে বিধি মেনে প্যান্ডেল হপিং করাটা একটু বন্ধ করুন এ বছরের জন্য। এবছর আপনি সুস্থ থাকলে সামনের বছর আনন্দ করবেন কিন্তু এ বছর যদি আপনি অসুস্থ হয়ে পড়েন পুজো তো দূরের কথা আপনি কোথায় থাকবেন তারও ঠিক নেই।

তার জন্যই প্রযোজ্য ভয়াবহ এবং রাজনৈতিক দলে মাথা না ঘামিয়ে আপনারা বাড়িতে ভার্চুয়ালি পুজো দেখুন। তা নিয়েও বিভিন্ন বিশেষজ্ঞরা মত পোষণ করেছে এবং পুজো যাতে না হয় তার জন্য কলকাতা হাইকোর্টের গট একটি কেসের শুনানি ছিল। শেষে বিভিন্ন রকম ভাবে রাজ্য সরকারকে বিভিন্ন প্রশ্ন তুলে দেওয়া হয়েছে। আদৌ তার উত্তর মিলেছে কিনা তার হদিস পাওয়া যায়নি। তবে পুজো হচ্ছে কিন্তু তা বলে জনস্বার্থের জন্য প্রচার তো বন্ধ হওয়া চলবে না। তাই বিভিন্ন জায়গা থেকে বিভিন্ন সম্প্রচার চালানো হচ্ছে এবং সবার জন্য জানানো হচ্ছে যে আপনারা ভার্চুয়াল পুজো এটেন্ড করুন। ভার্চুয়ালি পুজো উপভোগ করুন নিজের টিভিতে নিজের ফোনে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে। কিংবা প্যান্ডেল হপিং এবছরের জন্য একটু স্থগিত রাখুন। বাড়িতে আনন্দ করুন পুজোর কয়েকটা দিন। যদি সংক্রমণ থেকে বাঁচতে চান।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন