হাসপাতাল থেকে ডিসচার্জ করার সময় ডাক্তারকে দিতে হবে সার্টিফিকেট! রাজ্য স্বাস্থ্য ভবনের নিয়মে ডেড সার্টিফিকেট পাওয়া সহ করে দিল

0
Dr give discharge certificate to patients family member
ডেড বডি

হাজার সংবাদ ডেস্ক: নতুন নিয়ম জারি রাজ্য স্বাস্থ্য ভবনে। যেখান থেকে জানানো হচ্ছে যে এবার ডেট সার্টিফিকেট দেবে লাস্ট দিসচার্জ হাসপাতালে ডাক্তার। সবকিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর সার্টিফিকেট দেবে যেখানে লাস্ট বের করা হচ্ছে সেই হাসপাতাল থেকে। এর কারণ একটাই করোনা পরিস্থিতির আগে যখন হাসপাতাল থেকে ডিসচার্জ দেওয়া হচ্ছে অন্য হাসপাতলে পাঠানো হচ্ছে সেখানে থেকে যাওয়ার আগেই হয়তো রোগী মারা যাচ্ছে কিংবা জীবিত অবস্থায় ছিল। কিন্তু সেখানে গিয়ে যদি মারা যায় তাহলে আগের হাসপাতাল স্বীকার করছে না এবং পরবর্তী যে হাসপাতালে দেওয়া হচ্ছে সেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অস্বীকার করছে এবং তার সাথে সাথে একই রকমভাবে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে সাধারণ মানুষ এবং রোগীর পরিবার আত্মীয় স্বজনদের।

আর ঠিক তার জন্যই এই নিয়ম আর করোনা পরিস্থিতির পরে নিয়ম আরো জটিলতম হয়ে ওঠে। তার জন্যই জানানো হয়েছে যে রাজ্য স্বাস্থ্য ভবন থেকে এই জনস্বার্থে জানানো হয়েছে যে হাস্পাতাল থেকে রোগী ছাড়ছে বাড়ছে সেই হাসপাতালে। ডাক্তার সার্টিফিকেট লাগবে এবং যদি তার অবস্থা একটু হলেও ভালো থাকে তাহলে অন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর সেখানে ডাক্তার ডেট সার্টিফিকেট দেবে অর্থাৎ হাসপাতাল থেকে বের হতে হলে সার্টিফিকেট দিতে হবে ডাক্তারের অর্থাৎ হাসপাতাল থেকে বের করা হচ্ছে সেখান থেকে সার্টিফিকেট দিতে হবে সেখানকার ডাক্তারের প্রয়োজনমতো তাদের সার্টিফিকেট এর উপর নির্ভর করবে। কারণ এখন মানুষের হাতেই জীবন-মরণ তার কারণ প্রত্যেকটা হাসপাতালে দিনের-পর-দিন ঘটনাস্থলে এক হাসপাতাল থেকে আর এক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর জানানো হয় মৃত কিন্তু আদৌ সেই রোগী কোথায় এক্সপায়ার করেছে তার কোন হদিস নেই।

কারণ যদি সত্যিই তা হয় তাহলে অপরদিকে হাসপাতাল তা স্বীকার করছে না কেন? নিজেদের দায় এড়াতে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে রোগীর আত্মীয় স্বজন এবং বাড়ির পরিজনদের আর এইজন্যই নিয়ম চালু হয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য ভবনে। যদি কোন হাসপাতালে সার্টিফিকেট দেওয়া হয় সেই হাসপাতাল থেকে যখন তাকে ছাড়িয়ে নিয়ে অন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হবে ঠিক তার আগেই সেই হাসপাতাল থেকে রোগীর অবস্থা বিচার বিবেচনা করে সার্টিফিকেট দেবে সেখানকার ডাক্তার এবং রোগী।

যদি সামান্যতম হলেও ভালো থাকে তাহলে অন্য হাসপাতালে ভর্তির সময় সেখানে যদি গ্রহণ করা হয় ঠিক সেখান থেকে ছাড়ার সময় সেখানকার ডাক্তার অর্থাৎ যে ডাক্তার চিকিৎসা করেছে সেখানকার ডাক্তার দেবে তার সার্টিফিকেট। তার ওপর নির্ভর করবে সার্টিফিকেট। করোনা পরিস্থিতিতে সার্টিফিকেট নিয়ে অনেক বড় বড় সমস্যা হয়েছে যেখানে ৬ মাস আগে মৃত মানুষের সার্টিফিকেট পাওয়া যায়নি। তার জন্যই অনেক নিয়ম তৈরি হলেও সেই নিয়ম গ্রাহ্য করছে না বিভিন্ন হাসপাতাল। আর্থিক কারণে অনেক জোর দিয়ে এই নিয়ম চালু করার পথে এগোচ্ছে রাজ্য স্বাস্থ্য ভবন। আগে যদিও এই ব্যবস্থা সামান্যতম হলেও এখন করোনা পরিস্থিতিতে আরও অনেক কঠিন হয়ে উঠেছে কারণ পরিস্থিতির জন্য আলাদা ব্যবস্থা থাকে না একই রকমভাবে সাধারণ রোগ এই রোগ করোনা বলে প্রমাণিত করা হয় এবং তারপর দুদিন থেকে ৪ দিন যাওয়ার পর জানানো হয় মৃত বলে ঘোষণা করে। এইভাবে থাকতে থাকলে তাহলে কোন ভাবে কি ডেট সার্টিফিকেট পাওয়া সম্ভব নয়। তা নিয়ে রোগীর বাড়ির লোকেরা ঠিক সেই কথা ভেবেই রাজ্য স্বাস্থ্য ভবন থেকে এই নিয়ম।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন