মহালয়াতে তর্পণ বন্ধ থাকবে দক্ষিনেশ্বরের স্নান ঘাটে!

0
Dakshineswar Ghat will be closed at Mahalaya
মহালয়া তর্পণ

হাজার সংবাদ ডেস্ক: করোনা সংক্রমণ এড়াতে মহালয়ার দিন তর্পন বন্ধ থাকছে দক্ষিণেশ্বরের তিন ঘাটে। কোনভাবেই কোন ঘাটে এবছর আর তর্পনের নিয়মবিধি হবেনা। ছোঁয়াচে ব্যাধির নিয়ম মানতে গেলে এবছর করোনা সংক্রমনের জন্য সবকিছুই বন্ধ থাকছে মহালয়ার দিন। তিনটি ঘাটে তর্পণ একেবারেই নিষিদ্ধ দক্ষিণেশ্বরের। তিন ঘাট একেবারেই বন্ধ থাকবে। প্রতিবছরের ন্যায় যেভাবে লোকজন আসে তাতে দর্শনার্থী এবং যারা তর্পণ করতে আসে প্রায় লক্ষাধিক মানুষের ভিড় জমায হয়, বিশেষ করে স্নান এবং তর্পণ এর জন্য ঠাসাঠাসি ভীর বলা যায় দেবিপক্ষের দিন।

কিন্তু করোনা সংক্রমনের বিধি মানতে গেলে এই ছোঁয়াচে সংক্রমণ বাঁধা মানতে গেলে সেখানে কোনভাবেই ঠাসাঠাসি ভিড়ে তর্পণ করা সম্ভব নয় এবং মন্দির চত্বরে এই কাজ হওয়া সম্ভব নয়। তাই এবছর তর্পণ বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছে মন্দির কর্তৃপক্ষ। তবে সে ক্ষেত্রে জানানো হয়নি মন্দির খোলা হবে বা দেবি দর্শন হবে কিনা। তবে মন্দির করতিপক্ষ এবং কুশল জানিয়েছে ব্যারাকপুর কমিশনারের সঙ্গে কথা বলার পর ঠিক করা হবে দর্শনার্থীদের জন্য মাতৃদর্শন হবে সেদিনের জন্য। কিন্তু তোর তর্পণ না হলেও মাতৃদর্শন এর জন্য আমরা মন্দির খোলা রাখবো। তার জন্য রাখবো বিধিনিষেধ এবং নিয়মবিধি যেমনভাবে এখন মন্দির খোলা হয়েছে তেমন ভাবেই থাকবে সেই দিনের জন্য বিধিনিষেধ।

কিন্তু তর্পণের জন্য কোনোভাবেই মন্দির প্রাঙ্গণে কোন কাজ করা হবে না। বিধি মেনেই ঢুকতে দেওয়া হবে মন্দির চত্বরে তা না হলে মন্দির চত্বরে ঢোকা একেবারেই মানা। সেদিন একেবারে মন্দিরের মধ্যে যে তিনটি ঘাট রয়েছে সেই তিনটি খাটে হয়তো বন্ধ করা হবে। যেমন পঞ্চমবটিঘাট আরো যে দুটি ঘাট রয়েছে তার মধ্যে পঞ্চবটী ঘাট একেবারেই বন্ধ করা হয়েছে। তাহলে আর অন্য ঘাটগুলোতে কি আদৌ যাবে কিনা যাবে না তা নিয়ে নিশ্চিত কিছু না করলেও দক্ষিণেশ্বরের গঙ্গার চারিদিকে তর্পনের শোরগোল পড়ে। কিন্তু সেই দিন দক্ষিণেশ্বরের ঘাট বন্ধ থাকলেও অন্য ঘাটগুলি কি ব্যবস্থা নিচ্ছে তা এখনও জানানো হয়নি। ব্যারাকপুর কমিশনের সঙ্গে কথা বলার পর এবং পুলিশের সাহায্য নেওয়ার পর কি সিদ্ধান্ত নেয়া হয় তা খুব শীঘ্রই জানানো হবে।

তবে গঙ্গার তীরে যত কম স্নানযাত্রা এবং তর্পণ করা হয় ততই ভালো। মানুষের স্বাস্থ্যবিধির মাথায় রাখতে গেলে তর্পণ যদি নাও হয় তাও অনেক ভালো। তাই দক্ষিণেশ্বর ঘাট থেকে এইরকমই মন্তব্য পাওয়া গেছে। তর্পনের দিন এবছর একেবারেই বন্ধ থাকছে দক্ষিণেশ্বরের সমস্ত ঘাট। শুধুমাত্র মন্দির প্রাঙ্গন হয়তো খোলা থাকবে। সকাল বেলা সবাই সাধারণত তর্পণ করে কিন্তু মন্দির প্রাঙ্গন মন্দির যেমন সময় খোলা হয় তেমন খোলা হবে এবং বিধিনিষেধ মেনে ঢোকানো হবে মন্দিরের মধ্যে। মহালয়ার দিন বলে আলাদা কোন ছাড় থাকবে না। কারণ সংক্রমণ এড়াতে এখন বিধি নিষেধ মাথায় রেখে সমস্ত কাজ করতে হবে। এসব কিছু বিধিনিষেধ মানতে রাজি দক্ষিণেশ্বর মন্দির কর্তৃপক্ষ।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন