১৬ই জানুয়ারি থেকে কলকাতাতে হবে টিকা করনের! প্রস্তুতি জোরকদমে

0
corona vaccination will begin at 16 january
টিকাকরনের কাজ শুরু হবে খুব তাড়াতাড়ি

হাজার সংবাদ ডেস্ক: অবশেষে শেষ হল টিকাকরণের কাজ। টিকাকরণ 16 জানুয়ারি থেকে শুরু হবে টিকাকরণের মূল কাজ। কলকাতার বিভিন্ন হাসপাতালে সেই টিকাকরণের কাজের প্রস্তুতি চলছে। বহু প্রতীক্ষিত করোনার টিকা এসেছে মানুষের হাতে। অর্থাৎ এই মরণ ভাইরাসের প্রতিষেধক অবশেষে তৈরি হয়েছে আর সেই টিকা করনের জন্য প্রস্তুতি চলছে কলকাতার বিভিন্ন জায়গায়। সারাদেশে 16 জানুয়ারি থেকে টিকাকরণ শুরু হচ্ছে বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন ভাবে দেওয়া হবে। আর কলকাতার জন্য পাঠানো হয়েছে ৯৩,৫০০ টি ডোজ। কাদের উপর এগুলি দেওয়া হবে তার জন্য রয়েছে বিশেষ উল্লেখিত কিছু মানুষের নাম। তাদেরকে আগে থেকেই উল্লেখিত করা হয়েছিল।

১৬ জানুয়ারি থেকে করোনার টিকা করোনার টিকা করন শুরু হচ্ছে আর এই করোনার টিকা করনের জন্য সমস্ত প্রস্তুতির দরকার। কলকাতার মোট পাঁচটি সরকারি হাসপাতালে বাছা হয়েছে এবং প্রথমেই এই ডোজের কিছুটা পাঠানো হবে বালিগঞ্জে সেখান থেকে বিভিন্ন দপ্তরে আস্তে আস্তে ভাগ করা হবে। আর এছাড়াও আরবান সংস্থার আন্ডারে রয়েছে যে সমস্ত চিকিৎসালয় সমস্ত চিকিৎসা টিকাকরণের আওতায় আনা হয়েছে এবং সেখানেও যথাযথভাবে প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে টিকা করনের জন্য। টিকা করনের জন্য প্রস্তুতি চলছে জোড় কদমে তার কারণ বহুদিন পর একেবারে সম্পন্ন হয়েছে। এতদিন ধরে বিভিন্ন বাধা বিঘ্নের মধ্যে গেলেও অবশেষে পাওয়া গেছে ভারতে করোনা টিকা। বিভিন্ন জায়গায় চলবে এই টিকাকরনের কাজ। তার নির্দেশ দেয়া হয়েছে তবে ১৬ জানুয়ারি থেকে সব জায়গায় চালু করা হবে বলে সে কথা জানিয়েছে। টিকাকরণ এর আগে আরো অনেক প্রস্তুতির দরকার আর সেই প্রস্তুতির জন্য বিভিন্ন জায়গায় চলছে জোর কদম চলছে কাজ কর্ম।

পাঁচটি হাসপাতালকে বাছা হয়েছে টিকা করনের জন্য। পাঁচটি হাসপাতালে মধ্যে রয়েছে এসএসকেএম, আরজিকর হাসপাতাল, চিত্তরঞ্জন এছাড়াও মেডিকেল কলেজ অর্থাৎ কলকাতা মেডিকেল কলেজ এবং এনআরএস হাসপাতাল। এই সমস্ত সরকারি হাসপাতাল গুলোতে একের পর এক প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে এবং প্রত্যেকটা প্রস্তুতির জন্য প্রশাসনিক সাহায্য রয়েছে। যা নির্বিঘ্নে সম্পূর্ণ হয় 16 ই জানুয়ারি এই কাজ। এই কাজ সম্পন্ন হয় তার জন্য চিন্তা ভাবনা নেওয়া হয়েছে। প্রশাসনিক সংগঠনের সাহায্য অনেক বেশি হারিয়েছে এবং তার সাথে সাথে ১৬ জানুয়ারি ৯৩,৫০০ ডোজ সম্পূর্ণভাবে প্রত্যেকটা মেডিকেল সেন্টারে পৌঁছে দেওয়া যায় তার জন্য চেষ্টা চলছে পুরদমে। এখনও প্রথমেই পাঠানো হবে বালিগঞ্জ সেখান থেকে আস্তে আস্তে বিভিন্ন জায়গায় পাঠানো হবে এবং সেখান থেকে প্রত্যেকটা জায়গায় কিভাবে বাছা হবে তারও নির্দেশাবলী দেওয়া হবে খুব শীঘ্রই।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন