করোনা পরিস্থিতে দিল্লি আবার লকডাউনের পথে!

0
corona infection condition is very bad
আবার লকডাউন ডাকা হতে পারে দিল্লিতে

হাজার সংবাদ ডেস্ক: কালী পূজার পর থেকে প্রচন্ড পরিমানে করোণা সংক্রমণ বাড়ছে মহারাষ্ট্রে। শুধু তাই নয় দিল্লিতে এত পরিমান করোনা সংক্রমণ বেড়েছে যেখানে মানুষ কুল খুঁজে পাচ্ছেনা। অন্যান্য জায়গায় করোনা সংক্রমণ সামান্য হলেও কালী পূজার পর থেকে মহারাষ্ট্রে এতটা পরিমাণ করণা সংক্রমণ ঘটছে যেখানে আবার লকডাউন এর মন্তব্য করা হচ্ছে।

এর আগে অনেকবারই শোনা গেছিল যে শীত পড়লে কিংবা শীতের মুখোমুখি আবারো সংক্রমণ বাড়তে পারে। শুধু তাই নয় প্রত্যেকটা বিশেষজ্ঞরাও আলাদা আলাদা ভাবে সচেতনতা দিয়েছিল মানুষকে। শীতের সময় করোনা সংক্রমণ বাড়তে পারে কারণ অনেক বেশি সক্রিয় থাকবে করোনা সংক্রমণ। সক্রিয়তা নিজেদের মানুষের মধ্যে নিজেদের শরীরে বাসা বিস্তার করতে সক্ষম হবে। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের তাপমাত্রা কিছুটা কমলেও পরিমাণ বেড়ে ছিল না সংক্রমণ কিন্তু এখন হলেও একটু স্থিতিশীল হয়েছে। কিন্তু দিল্লিতে বেশ কিছু দিন অর্থাৎ কালীপুজোর পর থেকে অতিরিক্ত পরিমাণে করোণা সংক্রমণ হচ্ছে যেখানে আবারো ১৪ থেকে ১৫ দিনের লকডাউন পরিস্থিতি আনা যেতে পারে বলে মনে করছে সেখানকার মুখ্যমন্ত্রী।

কালি পুজোতে প্রত্যেক প্যান্ডেলে এতটাই ভিড় হয়েছিল সেখানে মানুষ মনে করেছিল যে আর যাই হোক করোনা বোধহয় এবার ভয়ে পালাবে মানুষের ভিড়ে কিন্তু তা নয় করোণা পরিস্থিতি হু হু করে বাড়তে চলেছে এই কালী পুজোর পর থেকে অর্থাৎ কোনোভাবেই ঠিক হয়নি কালি পুজোতে এইরকম ভাবে ভীর করে পুজাতে আনন্দ করা। দিল্লিতে এর আগে অনেক বেশি ছিল আর সেই জায়গা থেকে কালীপূজা করা ঠিক হয়নি। বিশেষ করে মহারাষ্ট্রের আরো বেশ কিছু জায়গায় অনেক বেশি পরিমাণে সংক্রমণ হয়েছে। শুধু তাই নয় অনেক আগেই কেরালা আহোমেদাবাদ থেকে অনেক বেশি সংক্রমণ এগিয়েছিল মহারাষ্ট্র আর এবার দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে অনেক বেশি সংক্রমণ হয়েছিল মহারাষ্ট্রে আর সেই জায়গা এখনো পর্যন্ত সবার উপরে।

রাজ্যের বেশ কিছু জায়গায় সংক্রমণ বেশি ছড়ালে ও এখন স্থিতিশীল কিন্তু মহারাষ্ট্র লকডাউন করতে হতে পারে। সেখানে বেশ কয়েকটি স্কুল খোলা হয়েছিল। তবে স্কুল খোলার পর শিক্ষক এবং ছাত্র ছাত্রীদের একইসাথে সংক্রমণ এতটাই বেড়েছে সেখানে কোনভাবেই স্কুল খোলা রাখা সম্ভব হয়নি। তাই স্কুল বন্ধ করতে হয়েছে হয়তো সম্ভব হলে ১৪ থেকে ১৫ দিনের লকডাউন ডাকতে হতে পারে। সেই রকম চিন্তাভাবনা নেওয়া হচ্ছে। সেখানকার মুখ্যমন্ত্রী ও জানিয়েছে যে সেখানে পরিস্থিতির পরিবর্তন করতে হলে অবশ্যই ডাকতে হবে। তা না হলে কোনভাবেই এই পরিস্থিতি সামাল দেওয়া সম্ভব নয়। আবার পুনরাবৃত্তি করেছে করোণা সংক্রমণ। করোনা সংক্রমণ আটকাতে গেলে আবারও লকডাউন এর দরকার না হলে কোনোভাবেই সম্ভব নয় এটা আটকানো।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন