বাস ভাড়া নিয়ে বিক্ষোভ, তার ওপরে ট্রাক অবরোধ মঙ্গল বার থেকে!

bus and truck strike
বাসের ভারার পর এবার ট্রাক অবরোধ

হাজার সংবাদ ডেস্ক: সপ্তাহের প্রথম দিন দূর্ভোগে পড়েছে মানুষ। কিভাবে অফিস যাবে বাস পাচ্ছেনা, রাস্তায় যানবাহন না পাওয়ায় কর্মক্ষেত্রে পৌঁছাতে পারছে না কেউ। হাওড়া থেকে প্রচুর মানুষ গাড়ি না পাওয়ায় দূর্ভোগে পড়েছে। র যে সরকারি বাস চলছে টা এতটাই ভির যে কাউকে তুলছেনা। যেখানে সরকারি বাস গুলোতে গোনাগুনতি প্যাসেঞ্জার নিয়ে চালাতে বলেছিল রাজ্য সরকার সেখানে সরকারি বাসগুলো তে এতটাই ভিড় যে তারা অন্যান্য প্যাসেঞ্জার তুলতে পারছে না কারণ বেসরকারি বাস রুটে নামছে না তাই।

বেশির ভাগ মানুষ বাসে উঠতে পারছে না, হেঁটে যেতে হচ্ছে তাদের গন্তব্যস্থলে কেউবা আবার বাড়িতে ফিরে আসছেন। জ্বালানি পণ্যের পেট্রোল-ডিজেলের দাম হঠাৎ বাড়ায় ধর্মঘট করেছে বেসরকারি বাস মালিকরা। তাই রাস্তাই বেরিয়েছে শুধু সরকারি বেশকিছু বাস।

তারা জানিয়েছিল ভারা না বাড়ালে সোমবার থেকে রাস্তায় নামবে না বেসরকারি বাস। আজ সকাল পর্যন্ত বেশকিছু বাস দেখা গেলেও এখন বেলার দিকে বেসরকারি বাস তো রাস্তায় আদৌ নেই তার সাথে সরকারি বেশকিছু বাসও রাস্তাই নেই। সকালে যেসব বাস ছিল এখন তার চার ভাগের এক ভাগ রয়েছে রাস্তায়। যার জন্য দূর্ভোগে পড়েছে মানুষ।

বেসরকারি বাস সিন্ডিকেট থেকে অনেক আগেই জানিয়েছিল যে তারা জ্বালানির দাম বাড়ায়, সাথে ভাড়া না বাড়ায় তারা রাস্তায় নামতে পারবে না। ভারা বারলে তবেই তারা গাড়ি চালাবে। অর্থাৎ এদিকে পেট্রোলের দাম বাড়ছে ডিজেলের দাম বাড়ছে সাথে ভাড়া বাড়াচ্ছে না। সারাদিনে তাদের খরচ সেই খরচ উঠছে না ঘর থেকে টাকা দিয়ে গাড়ি চালাতে হচ্ছে বলে দাবি মালিকদের। তাই তারা অবরোধ করতে করেছে ভারা বাড়ানোর দাবিতে।

তাদের অবরোধ সাথে সাথে আজকে অনেক ট্রাক মালিকরা এবং অ্যাসোসিয়েশানও ঘোষণা করেছে যে মঙ্গলবার থেকে তারা ট্রাক অবরোধ করতে চায়। তার কারণ জ্বালানির দাম বাড়ায় তাঁদের লাভের পরিমান নেই তাই রাস্তায় নামবে না। অত্যধিক পরিমাণে জ্বালানির দাম বাড়ায় তারা রাস্তায় নামলে অনেক সমস্যা হচ্ছে গাড়ি নিয়ে। যাতায়াতের খরচ তুলতে পারছে না এবং অনেক রাস্তা এতটাই খারাপ যে গাড়ি নিয়ে যাওয়ার পর গাড়ির বিভিন্ন পার্টস খারাপ হচ্ছে সেই সেগুলো নিজের টাকা দিয়ে সারাতে হচ্ছে। সাথে দিতে হছে ট্যাক্স। ট্রাক অ্যাসোসিয়েশন থেকে তারা রাজ্য সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী প্রতি মাসের ট্যাক্স দিতে নারাজ।

বাস-ট্রাক কর্মীদের ট্রাক কর্মীরা আবেদন জানিয়েছিল যে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত ট্যাক্স মুকুব করা হোক কিন্তু রাজ্য সরকার তা না করে ট্যাক্স চাইছে প্রত্যেক অ্যাসোসিয়েশনের উপর। মালিকপক্ষ ট্রাক অ্যাসোসিয়েশনের জানিয়েছে যে ভারতবর্ষের মধ্যে 40% গাড়ি চললেও 60% গাড়ি গ্যারেজ করে রেখেছে এই একি সমসস্যার জন্য। তারা নামছে না রাস্তায় তার কারণ শুধুমাত্র জ্বালানির দাম এবং এবং সরকারি ট্যাক্সের জন্য। তাদের উক্তি বাড়ির টাকা দিয়ে বাইরে গাড়ি চালাতে পারবে না।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন