শুরু হবে এবার সমস্ত যোজনার কাজ! সবুজ সাথির জন্য রাজ্যে তৈরি হবে সাইকেল কারখানা

0
Bicycle factories will be set up in the state for Sabuj Sathi Yajana
সবুজ সাথি যোজনা

হাজার সংবাদ ডেস্ক : করোনা প্যানডেমিক এর জন্য পৃথিবীতে সমস্ত দেশের অবস্থা গুরুতর এবং সমস্ত দেশের সরকারি এবং সমস্ত সুযোগ সুবিধা এতে যা কিছুর যোজনা ছিল সবকিছু এখন বন্ধ বলা যায়। কিন্তু বিভিন্ন রাজ্য তথা বিভিন্ন দেশে সেই সমস্ত কাজকর্ম আবার শুরু করতে চলেছে সরকার। শিক্ষাব্যবস্থা যেমন দুর্বল হয়ে পড়েছে ঠিক একইভাবে আরো অনেক সরকারি সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছে মানুষ। ঘরবন্দি হয়েছে সমস্ত মানুষ।

এখন সুযোগ-সুবিধা তো দূরের কথা এখন কোন যোজনার কথা মাথায় রাখা যাবেনা। তবে বিভিন্ন রাজ্য থেকে সেই রাজ্যের রাজ্য সরকারের উদ্যোগে আবারও সমস্ত যোজনা শুরু হতে চলেছে যেমন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের নির্দেশে পশ্চিমবঙ্গে আবার শুরু হবে সবুজসাথী যোজনার কাজ। তথা আরো বেশকিছু যোজনা শুধুমাত্র ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য নয় ছিল জনসাধারণের জন্য। প্রথমত নবান্নের বৈঠক মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছে যে সবুজ সাথী যোজনায় আবার নতুন করে শুরু করতে করোনা প্যানডেমিক এর জন্য এতদিন যেখানে নজর দেওয়া যায়নি সেখানে এবার থেকে নজর দিয়ে আবারো সচল করতে চাই সেই সমস্ত যোজনার কাজ।

এ।বং তিনি জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গে এতদিন যেভাবে সবুজসাথী যোজনার জন্য সমস্ত ছাত্রছাত্রীকে দেওয়া হতো সাইকেল ঠিক একইভাবে আবার এই সাইকেল দেওয়া হবে তবে এবার চিন্তাভাবনার একটু বদল ঘটিয়েছে রাজ্য সরকার, যেমন সাইকেল দিলে সেই সমস্ত সাইকেলের পার্টস কিনতে হতো বাইরে থেকে বা কিনতে হতো বাইরে থেকে কিন্তু এবারে নিজের রাজ্যে সাইকেল কারখানা তৈরি করার উদ্যোগে এগোচ্ছে রাজ্য সরকার। তিনি জানিয়েছেন শুধুমাত্র স্কুল গুলোর জন্য যে সমস্ত সাইকেল দেবে ওই কারখানাগুলো তার জন্য অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছে।

যে সমস্ত সাইকেল কারখানাগুলো এখানে সাইকেল কারখানা খুলতে চায় অর্থাৎ নিজ রাজ্যে সেই কারখানাগুলকে আগে সুযোগ দেওয়া হবে এই সবুজ সাথী যোজনা তে সাইকেল ডেলিভারি করার জন্য। নিজের রাজ্যে যদি সাইকেল কারখানা হয় তাহলে অনেক কর্মচ্যুত ব্যক্তি কাজ পাবে এবং সেখানে কাজের সুযোগ বাড়বে। অনেক বড় বড় কারখানা বানানো হবে সাইকেল কারখানার জন্য স্কুলে বিতরণ যেমন সাইকেল হতো ঠিক একইভাবে সাইকেল বিতরণ করা হবে। রাজ্য সরকারের কথা অনুযায়ী হিসেব মিলিয়ে দেখা গেছে প্রায় 2 লক্ষ ছাত্র ছাত্রী এখনো সাইকেল পায়নি তাদের প্রাপ্ত সাইকেল এখনো তাদের হাতে দেওয়া হয়নি। কিন্তু এবার সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যে রাজ্য সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী তাদেরকে দিতে হবে প্রাপ্ত সাইকেল। এই দু লক্ষ ছাত্র ছাত্রীদেড় তাদের সমস্ত সাইকেল দিয়ে দিতে হবে তবে এখন যেহেতু স্কুল বন্ধ সেপ্টেম্বরের মধ্যে খোলার কোনো সুযোগ নেই তাই বাড়ি বাড়ি গিয়ে সাইকেল দেওয়ার কথা জানিয়েছে রাজ্য সরকার।

আগে যে সমস্ত ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে দেওয়া হতো সেই সমস্ত সাইকেলের কম্পানি বাইরের হয়তো তাদের কোন ব্যবসা রয়েছে কিন্তু সমস্ত সাইকেলের পার্টস কেনা হতো বাইরে কিন্তু এবার রাজ্য সরকারের নির্দেশে যে সাইকেল কারখানা হবে এই রাজ্যে। সেই কারখানায় সমস্ত পার্টস এবং মেটেরিয়াল এখানে তৈরি করার ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এতদিন যাদেরকে সাইকেল প্রাপ্য কিন্তু দেওয়া হয়নি সেই সমস্ত ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য হিসেব অনুযায়ী অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে এটা যাতে সেপ্টেম্বরের মধ্যে সম্পূর্ণ করা যায় তার জন্য যথাযথ ভূমিকা নিচ্ছে রাজ্য সরকার।

করোনা পরিস্থিতির জন্য এখনো পর্যন্ত সেভাবেও তাকানো যায় নি অন্যান্য যোজনাতেও যেমন যুবশ্রী কন্যাশ্রী রূপশ্রী এ ছাড়াও আরও বেশ কয়েকটি যোজনা রয়েছে সেই সমস্ত যোজনা দিকে তাকানো হয়নি। তবে এবার সেই সমস্ত যোজনা নিয়ে কাজ করতে অগ্রণী ভূমিকা নিয়ে এগোচ্ছে রাজ্য। কন্যাশ্রী রূপশ্রী বাংলায় সব যোজনা আছে সেই সমস্ত যোজনা তে যদি এখনো পর্যন্ত কোন সমস্যা হয়ে থাকে বা কোন ছাত্র-ছাত্রী টাকা না দেওয়া হয়ে থাকে তার হিসেব করে খুব তাড়াতাড়ি এবং তাদের ব্যাংক একাউন্টে টাকা ঢুকিয়ে দেওয়া যায় এবং সুযোগ সুবিধা পাওয়া যায় তার ব্যবস্থা করবে রাজ্য সরকার। নবান্নের বৈঠক এ নির্দেশ অনুযায়ী এতদিন করোণা পরিস্থিতিতে তার সুযোগ হয়ে ওঠেনি তবে এবারে পরিস্থিতি একটু সামলানো গেছে তার জন্য এই চিন্তা ভাবনা নেওয়া হচ্ছে রাজ্য সরকারের নির্দেশে আবারো জনসাধারণের জন্য সমস্ত যোজনা শুরু হবে। তারা সব সুবিধা পাবেন বিশেষ করে ছাত্র ছাত্রীদের জন্য যে সমস্ত সুযোগ সুবিধা ছিল তা খুব তাড়াতাড়ি আবারো সচল হবে বলে জানিয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন