সমস্ত বাস চলবে আজ থেকে কলকাতাই

0
bus service
সমস্ত বাস চলবে আজ থেকে

বৃহস্পতিবার থেকে পুরানো ভাড়ায় বাস রাস্তায় নামছে সরকারি বাস গুলো পুরনো ভাড়ায় চলবে বাস এই দাবি রেখেছে। কিন্তু এদিকে বাস মালিকেরা ভাড়া বাড়ানোর জন্য যে সংগঠন তৈরি করেছিল, তা থেকে এক পাও তারা সরছেনা। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে সমস্ত সরকারি বাস রুট এ নামবে । এবং যে সমস্ত বেসরকারি বাস ভাড়া বাড়ানো নিয়ে সংগঠন তৈরি করেছিল তারা এখনো পর্যন্ত অনেকেই রোডে বের হননি তাদের সংগঠন স্বার্থ পূরণ না হওয়া পর্যন্ত তারা রাস্তায় বেরোবে না এই তাদের দাবি।


পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী জানিয়েছেন যে দাবি কিছুটা হলেও মেনে নিয়ে আশ্বাস দিয়েছেন তাদের এবং তিনি বলেছেন বাস মালিক এবং কন্ট্রাকটারদের জন্য আলাদা একটি বীমা দেওয়া হবে এবং তার সাথে সাথে সময় মেপে সময়ের সাথে সাথে ভাড়া বাড়ানোর প্রস্তুতিও নেয়া হবে। কিন্তু এখন ভাড়া বাড়ানো যাবে না। তার মতে সমস্ত সংগঠন কমিটির ভাড়া বাড়ানোর আন্দোলন তুলে নিয়ে তারা সমস্ত বাস রাস্তায় নামবে বলে আশ্বাস দিয়েছে। ভাড়া বৃদ্ধির আশ্বাস পূরণ না হয় তারা এতদিন রোডে নামেনি, তবে বৃহস্পতিবার থেকে সমস্ত বাস রাস্তায় নামবে এই সূত্রের খবর।


তার মধ্যেই সোমবার সকাল থেকে গাড়ি চলাচলের যে হয়রানি হয়েছে মানুষ তার জন্য বিকল্প ব্যবস্থা করছে উপরমহল থেকে। বেশ কিছু ফেরি ব্যবস্থাগুলো চালু করা হবে। এই ৪-৫ দিনে মানুষের যে হয়রানি হয়েছে তা শনিবার থেকে আরো অনেকটাই মুকুব হবে বলে আশা করছেন পরিবহনমন্ত্রী। ফেরি ব্যবস্থা চালু করলে অনেক মানুষই ট্রেন চলাচলের বিকল্প একটি রাস্তা পাবে অর্থাৎ যে সমস্ত এলাকায় ফেরি সার্ভিস রয়েছে সেই সমস্ত এলাকার পাশ দিয়ে ট্রেন ব্যবস্থা রয়েছে। যেহেতু এখন ট্রেন চলছে না তার জন্য তারা আপাতত ফেরিতে করে তারা অফিস যাতায়াত করতে পারে। যে যে রুটে ফেরি সার্ভিস পাওয়া যাবে তার মধ্যে বেশ কিছু রুট হল ব্যারাকপুর থেকে শ্রীরামপুর, উত্তরপাড়া থেকে বাগবেলুড় ও বেলুড়।


সোমবারের তুলনায় আজকের হয়রানি অনেকটাই কমেছে এখন বাসে দাঁড়াতে হচ্ছে কম এই দিন কলকাতায় সরকারি বাস ছিল ৭৫০ টি এবং ৫৫০ টি বেসরকারি বাস। তাই অনেকটাই হয়রানি কমবে আগামী সোমবার থেকে। বুধবার পর্যন্ত কলকাতার প্রত্যেকটা রুটে AC বাস চলাচল করেছে যার জন্য সারাদিনের হয়রানি একটু হলেও কমে ছিল। বৃহস্পতিবার অর্থাৎ আজকে থেকে আশা করা যাচ্ছে সমস্ত রকম দুর্ভোগ আগের থেকে অনেক পরিমাণ কমবে। ৮ ই জুনের পরে মানুষের নাজেহাল অবস্থা শেষ হবে আশা করা যাচ্ছে কিন্তু যতক্ষণ না মেট্রো এবং ট্রেন চলছে ততক্ষণ কিছুটা হলেও কিছু মানুষের অসস্তি থেকে যাবে । তাই শনিবার থেকে ফেরি সার্ভিস শুরু করলে ট্রেন যাত্রীদের অনেকটাই দুর্ভোগ কমবে বলে মনে করা হচ্ছে তাই আধঘন্টা থেকে দেড় ঘন্টার মধ্যে ফেরি সার্ভিস দেওয়া হবে। সময়ের সাথে সাথে সিচুয়েশন অনেকটাই সাধারণ হবে বলে দাবি পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন