রবিবার সকালে প্রত্যেক ব্যাবহারকারির ফোন নিজ স্ট্যাটাস নিয়ে ফিরল হোয়াটস অ্যাপ! জানিয়ে দিল সব ডেটা End-to-End Encrypted

0
All the data end-to-end encrypted on whats app
তথ্য সিকিওর হোয়াটস অ্যাপে

হাজার সংবাদ ডেস্ক: তথ্য প্রাইভেসি নিয়ে হোয়াটসঅ্যাপে যে ভাবে গুজব রটেছিল তার সঠিক সুরাহা দিল রবিবার সকালে হোয়াটসঅ্যাপ নিজেই। এই ম্যাসেজিং অ্যাপের মাধ্যমেই মানুষ মনে করছিল ফোন নাম্বার থেকে শুরু করে সমস্ত মেসেজ এবং লোকেশন সবকিছু শেয়ার হতে পারে সবার কাছে। সবাই দেখতে পারে সেই লোকেশন এবং সমস্ত জিনিস কিন্তু তা নয় এ নিয়ে বহুবার আদালতে পেশ করা হয়েছে সবার মনেই। এই গুজব রটেছিল যে খুব তাড়াতাড়ি পরিবর্তন হতে পারে হোয়াটসঅ্যাপ কিন্তু তা নয় এবারে তার প্রমাণ দিল হোয়াটসঅ্যাপ নিজেই। রবিবার সকালে প্রত্যেক ফোনের অর্থাৎ যারা হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে সেই ব্যবহারকারীদের ফোনে বন্ধুবান্ধব পরিচিত মানুষ স্ট্যাটাস নয় হোয়াটসঅ্যাপ নিজেই স্ট্যাটাস দিয়ে জানিয়ে দিয়েছে প্রাইভেসি পলিসি নিয়ে বেশ কিছু জিনিস।

যার মধ্যে রয়েছে যে হোয়াটসঅ্যাপ এন্ড টু এন্ড ক্রিপ্টেড থাকার জন্য কোন মেসেজ এবং কেউই দেখতে পাইনা সাথে শেয়ার করা লোকেশন দেখতে পায়না হোয়াটসঅ্যাপের এবং হোয়াটসঅ্যাপে থাকা ফোন নাম্বার কিংবা ফোন কন্টাক্ট লিস্টে থাকা নাম্বার তা কোনোভাবেই ফেসবুকে পাওয়া সম্ভব নয়। যদিও ফেসবুক হোয়াটসঅ্যাপ একসাথে টাইআপ হলেও তা কোনোভাবেই সম্ভব নয়। বরং হোয়াটসঅ্যাপ অনেক বেশি প্রাইভেসি পলিসি প্রটেক্ট করে যার মধ্যে হয়তো কোন ভাবে ডাটা শেয়ার করা যেতে পারে না বা তথ্য চুরি হতে পারে না। এর আগে এই হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজিং অ্যাপ নিয়ে মানুষের মনে এত চিন্তা ছিল যার মাধ্যমে সবাই মনে করেছিল খুব তাড়াতাড়ি হয়তো ছেড়ে দিতে হবে হোয়াটসঅ্যাপ অর্থাৎ হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীরা ব্যবহার করতে পারবে না হোয়াটসঅ্যাপ। আর যদিও ব্যবহার করতে হয় তার মধ্যে বহু প্রটেক্ট সিকিওর প্রাইভেসি পলিসি দিয়ে চালাতে হবে ওই হোয়াটসঅ্যাপ। কিন্তু যা সাধারণ মানুষের কাছে থাকে না আর তাই সবাই হয়তো ব্যবহার করতে পারবে না অবশেষে হোয়াটসঅ্যাপ নিজেই জানিয়ে দিয়েছে যে হোয়াটসঅ্যাপের মধ্যে কোন এটা কারো কাছে শেয়ার হয় না বা লীগ করা যায় না। আর তার জন্য কখনোই হোয়াটসঅ্যাপ দায়ী নয় হোয়াটসঅ্যাপের সমস্ত মেসেজ এবং লোকেশন ফটো কন্টাক্ট সবকিছুই থাকে এনক্রিপটেড স্বাভাবিকভাবেই ব্যবহারকারী ছাড়া অন্য কেউ দেখতে পাবে না এবং অন্য কারোর পক্ষে দেখা সম্ভব নয়।

রবিবার সকালে সবাই হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাপ খোলার পর দেখা গেল হোয়াটসঅ্যাপ স্ট্যাটাস দিয়েছে যা প্রত্যেকটা ব্যবহারকারীর কাছে পৌঁছেছে এবং প্রত্যেক ব্যবহারকারীর মোবাইলের সবার প্রথম স্ট্যাটাস হোয়াটসঅ্যাপ স্ট্যাটাস। এতদিন পর্যন্ত যা কখন আসেনি তার মধ্যে দেওয়া ছিল বেশ কিছু প্রাইভেসি পলিসি সেই প্রাইভেসি পলিসি মধ্যে ছিল সেই জানান কথা যার মধ্য দিয়ে ভয় পাচ্ছিল এতদিন মানুষ হোয়াটসঅ্যাপ ছাড়তে হবে না।

হোয়াটসঅ্যাপে যে রুল এবং রেগুলেশন ঠিক করা হয়েছিল ফেব্রুয়ারির কুড়ি তারিখে সেটি পিছিয়ে করা হয়েছে মার্চের 15 তারিখ সেটিও জানিয়েছে এই স্ট্যাটাসের মাধ্যমে সাথে সাথে এও জানানো হয়েছে যে এবার হোয়াটসঅ্যাপ সবাই ব্যবহার করতে পারবে তা নিয়ে সন্দেহ নেই বরং হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে যে সমস্ত চুরির কথা জানানো হচ্ছিল বা হ্যাকিংয়ের সমস্যা আসতে পারতো তা আর হবে না এবং তা আসা সম্ভব নয়। তার কারণ হোয়াটস্যাপ এর সমস্ত মেসেজ থেকে শুরু করে বাকি তথ্য থাকে এনক্রিপটেড যা কোনভাবেই অন্য কারোর পক্ষে দেখা সম্ভব নয় হ্যাক তো দূরের কথা।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন