বছরের সেশে আসবে করোনার টীকা! জানাল ভারত বায়োটেক

0
The corona vaccine is coming at the end of the year
ভারত বায়োটেক

হাজার সংবাদ ডেস্ক: বিভিন্ন দেশের সঙ্গে যে প্রতিযোগিতায় নেমেছিল সমস্ত দেশ সেখান থেকে ভারতে গিয়েছে একধাপ কারণ বছরের শেষে আসতে চলেছে করোনার টিকা. টিকা তিনটে ফেজে ট্রায়াল শেষ করে বাজারে আসবে যার কোন অন্যরকমভাবে প্রতিক্রিয়া থাকবে না। শুধুমাত্র কার্যকরিতা থাকবে তার জন্যই তৃতীয় ট্রায়াল চলছে। শেষ হতে সময় লাগবে সেই সময় নিয়ে হাতে গোনা কয়েকটি দিন বাকি তার মধ্যেই আসতে চলেছে বাজারে করণা ভ্যাকসিন। ভারত বায়োটেক খুব তাড়াতাড়ি নিয়ে আসবে করোনার টিকা। সমস্ত পরীক্ষা-নিরীক্ষার পরে বাজারে আনা হচ্ছে করোনা। তিনটি ট্রায়ালের পড়ে তবে বাজারে এবার সেই টিকা তিনবার ট্রায়ালের পরে আসতে চলেছে।

বিভিন্ন বিশেষজ্ঞদের মতে এখনো পর্যন্ত কোন দেশে সম্ভব হয়নি তবে এবার ভারত বায়োটেক সেই দিকে এগিয়েছে। ট্রায়ালে অনেকটাই এগিয়ে যাচ্ছে ভারত। তৃতীয় ফেজে চলছে ভারতের এই ট্রাইল সম্পূর্ণ হলে তারপরে বাজারে নিয়ে আসা হবে করণা ভ্যাকসিন। রাশিয়া এখনো পর্যন্ত এসেছে কিন্তু তাতে তৃতীয় ট্রায়াল হয়নি। তার জন্য থেকেও জানানো হয়েছিল যে এখনো পর্যন্ত তৃতীয় ট্রায়াল না হওয়াই বাজারে কেন অনুমতি পত্র দেওয়া হল রাশিয়াকে। কিন্তু তার কোনো উত্তর মেলেনি বিরোধিতা করেছে বিভিন্ন বিশেষজ্ঞরা তৃতীয় ট্রায়াল চলানোর আগে যদি কোন ভ্যাকসিন বাজারে আসে তার মূল্য তেমন থাকবে না। সেরকম ভাবেই বিরোধিতা করেছে বেশ কিছু বিশেষজ্ঞরা। এবার ভারতের তৃতীয় ট্রায়ালের পর খুব তাড়াতাড়ি বাজারে আনতে চলেছে করোনার ভ্যাকসিন। অন্য দেশে এখনো পর্যন্ত এই পর্যায় আসা সম্ভব হইনি। কিন্তু ভারতে অলরেডি পা দিয়ে ফেলেছে।

সরকারি নিয়ম মেনে এবং অনুমতিপত্রের ছাড় মেলায় ভারত বায়োটেক সবার আগে তৃতীয় ট্রায়ালের পর বাজারে আনতে চলেছে করণা ভ্যাকসিন। চলতি বছরের শেষেই কিংবা আগামী বছরের প্রথমার্ধে এই ভ্যাকসিন পাবে সমস্ত দেশবাসীর অর্থাৎ ডিসেম্বরের মধ্যে কিংবা জানুয়ারি থেকে ফেব্রুয়ারির মধ্যেই এই তিকা হাতে পাবে সারা দেশবাসী। তবে ভারত বায়োটেক থেকে এখনো পর্যন্ত রেসপন্স ভালোই মিলেছে তবে এই প্রতিক্রিয়া যতক্ষণ ভালো থাকছে ততক্ষণ পর্যন্ত অনুমতি পত্র পাবে ভারত’। এখনো পর্যন্ত অনুমতি পত্র পেয়েছে সেই অনুমতিপত্রের জন্যই এগিয়েছে ভারত প্রত্যেকটা অনুমতিতে সক্রিয় প্রতিক্রিয়া মিলেছে ভারত বায়োটেক করোনা ভ্যাকসিন তৈরীর পথে।

এখনো বাজারে অনুমতি পেয়েছে তার জন্য অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ও তার নিজের শরীরে পুশ করতে বলেছে রাশিয়ার সেই করনা ভ্যাকসিন এছাড়াও রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর মেয়ের শরীর করা পুশ হয়েছে এই মেডিসিন। কিন্তু তাও গ্রহণযোগ্য নয় বলে প্রমাণ করেছে বিভিন্ন দেশের বিশেষজ্ঞ তথা বিভিন্ন মেডিকেল টিম। তবে এবার রাশিয়া থেকে হয়তো ভারতের পর মেডিসিন নিয়ে এসেছিল বাজারে কিন্তু এবার ভারতে ইন্টারফেস কমপ্লিট করে সবার আগে মেডিসিন আনতে চলেছে ভারতের বাজারে। তা অন্য দেশের মতো এতোটা ও সক্রিয় গ্রহণযোগ্য বলতে এখানে বুঝিয়েছে প্রত্যেকটা ভ্যাকসিন তৈরি করতে গেলে তার তৃতীয় ট্রায়ালের আগে বাজারে আনা সম্ভব নয় তবে অন্যান্য দেশ ভ্যাকসিন তৈরি করলেও আপাত দৃষ্টিতে খুব একটা কার্যকরী নয়। কারণ তৃতীয় পেজের ট্রায়াল’ কোনভাবেই তারা কেউ চালায় নি সামান্য প্রতিক্রিয়া দেখে সেই মেডিসিন বাজারে অনুমতি পত্র দিয়ে বের করেছে। কিন্তু এবার ভারত সমস্ত নিয়ম মেনে দিল এরপর বাজারে আনতে চলেছে করোনার ভ্যাকসিন।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন