কুকুর সোয়াবের গন্ধ শুঁকে বলে দেবে কোন ব্যক্তি করোনা সংক্রামিত কিনা

0
dog identify to corona infection
কুকুর বলে দেবে করোনা হয়েছে কি না

হাজার সংবাদ ডেস্ক: এবার করোনা হয়েছে কিনা শনাক্ত করবে কুকুর। সংক্রামিত রোগীদের বাছাই করতে এবার কুকুর কে বলে দেবে কারা সংক্রমিত এবং কারা সংক্রামিত নয়। আলাদা করে সোয়াব টেস্ট ও এন্টি বডি টেস্টের কোন দরকার নেই। একটা কুকুর পরীক্ষা করে বলে দেবে যে তার করোনা আছে কিনা। জার্মান এক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এইরকমই দাবি করা হয়েছে যে তারা সামেয়র কুকুরকে ট্রেনিং দিচ্ছে এবং সেই কুকুর প্রায় এই কাজ করতে 100 গুণ সক্ষম বলে জানিয়েছে তারা।

জার্মানি পশু বিদ্যালয় থেকে তারা ৮ টি সামেয়র কুকুর কে ট্রেনিং দিচ্ছে এবং তাদের হাতে রয়েছে বহু কুকুর এবং তারা এই কাজে যথেষ্ঠ সক্ষম এখনও পর্যন্ত। তারা প্রশিক্ষণের কাজ চালাচ্ছে যাতে খুব সহজে এই কাজে আরও সক্ষম হয়। তারা দাবি জানিয়েছে যেখানে মানুষের ঘ্রাণশক্তি 25 লক্ষ কোষ রয়েছে সেখানে কুকুরের 22 কোটি কোষ রয়েছে। তাই মানুষের থেকে কুকুরের ঘ্রাণশক্তি অনেক বেশি ঘ্রাণশক্তি। তারা জানিয়েছে এর আগেও তারা যে পরীক্ষা নিয়েছিল এই আটটি কুকুরের উপর সেই পরীক্ষাতে তারা ৯৮% সঠিক ফল দিয়েছে। তাই তারা প্রশিক্ষণ আরো উন্নত পদ্ধতিতে চালাচ্ছে যাতে 100% ফল যাতে তারা পাই।

বেশ কিছুদিন আগে ১০০০ জন মানুষের নমুনা নেওয়া হয়েছিল তার মধ্যে ছিল করোনা সংক্রমিত রুগির নমুনাও কিন্তু সেই নমুনা তারা শুঁকে বলে দিয়েছে যে তার মধ্যে কারা করোনা সংক্রামিত এবং কারা করোনা সংক্রামিত নয়। করোনার সংক্রমিত ব্যক্তির সোয়াবের গন্ধ আলাদা তাই তারা সেটা শুঁকে বলে দিতে পেরেছে কোনটা করোনা আক্রান্ত রোগীর এবং যারা আক্রান্ত নয় তাদের তাও বলে দিতে পেরেছে খুব সহজে।

জার্মান বিশ্ববিদ্যালয় এবং ভিটামিন সংস্থা একসাথে মিলিয়ে এই কাজ সফল করেছে তাই তারা চাই আরো একটি পদক্ষেপ একসাথে লড়বে এবং তারা জানিয়েছে যে সাধারন ইনফ্লুয়েঞ্জা এবং পজিটিভ রোগী কে যাতে আলাদা করে নির্বাচন করা যায় তার জন্য তাদেরকে আরো একটি ট্রেনিং দেওয়া হবে। এই বিষয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালাচ্ছে আমেরিকা ফ্রান্সের মতো সংস্থাগুলোও। এই সমস্ত সামেয়র দলগুলিকে ভালো কাজে লাগানো যেতে পারে শহরে যেখানে তারা থাকবে সেখানে করো না রোগীদের চিহ্নিত করতে পারবে।

জার্মান বিশ্ববিদ্যালয় দাবি আমরা যেভাবে প্রশিক্ষণ চালিয়েছি তাতে এই আটটি কুকুরকে এয়ারপোর্ট রেলস্টেশন এছাড়াও বিভিন্ন জনবহুল জায়গাতে এই কুকুর রাখা যেতে পারে, যারা দন্ধ শুঁকে বলে দেবে সেই রেলস্টেশন কিংবা এয়ারপোর্টে কোন সংক্রামিত ব্যক্তি রয়েছে কিনা, বা অন্য সংক্রামিত কোন ব্যক্তি যদি থেকেও থাকে তাও জানাবে। তাই যথেষ্ট ভালো কাজের হবে এই সামেয়র দলের ঘ্রান শক্তিকে কাজে লাগিয়ে যে প্রশিক্ষণ শুরু করা হয়েছে। তবে স্বাভাবিক ভাবে মানুষের থেকে অনেক বেশি বার নিস্বাস নেই। তাই সামেয়র দলগুলির জন্য যথেষ্ট কার্যকরী। এই কাজ এই দলগুলোর সাহায্য নিয়ে এবার করোনা সংক্রমিত ব্যক্তির চিহ্নিত করা অনেক সহজ হয়ে দাঁড়াবে।

একটি মন্তব্য করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন